× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার
বাংলাদেশ-তুরস্ক বৈঠক

রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনে বিশ্বাঙ্গনে একত্রে লড়বে দুই দেশ

দেশ বিদেশ

কূটনৈতিক রিপোর্টার | ২৩ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১০:০৩

পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে বাংলাদেশ-তুরস্ক তৃতীয় ‘পররাষ্ট্র দপ্তরের পরামর্শ‘ সভা সোমবার তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে পররাষ্ট্র সচিব মোঃ শহীদুল হক বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম আল্লামা সিদ্দীকী, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, আঙ্কারাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ও ইস্তাম্বুলস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট-এর কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। তুরস্কের পররাষ্ট্র উপমন্ত্রী সিদাত ওনাল বৈঠকে দেশটির প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন। বাংলাদেশ দূতাবাসের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছেÑ আন্তরিক পরিবেশে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশ-তুরস্কের মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে উভয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। সম্পর্ককে আরো নিবিড় ও কার্যকর করার লক্ষ্যে উচ্চতর পর্যায়ে সফর বিনিময় বৃদ্ধিসহ সার্বিক দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতাকে ব্যাপকতর করার বিষয়ে দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তারা। বিশেষতঃ দ্বিপক্ষীয় কূটনীতি, ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগ, শিল্প, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, প্রতিরক্ষা ইত্যাদি ক্ষেত্রে সম্পর্কোন্নয়নে অগ্রাধিকার প্রদানে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন। দু’দেশের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তিসমূহের যথাযথ বাস্তবায়ন ও প্রক্রিয়াধীন চুক্তিসমূহ দ্রুত স্বাক্ষরের ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।


বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়Ñ বৈঠকে ‘বঙ্গবন্ধু ব্যুলভার্ড’ নামে আঙ্কারার একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি আবক্ষ মূর্তি শিগগিরই স্থাপনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। একই সঙ্গে তুর্কী কর্তৃপক্ষও তাদের জাতির পিতা মোস্তফা কামাল আতাতুর্কের একটি আবক্ষ মূর্তি ঢাকাস্থ আতাতুর্ক এভিনিউ-এ স্থাপন করবে। দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ও বিনিয়োগ ক্ষেত্রকে আরো সম্প্রসারিত ও ব্যাপকতর করার লক্ষ্যে বিশদ আলোচনা হয়। বিশেষতঃ বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি, তুরস্কে বাংলাদেশি তৈরি পোশাক (আরএমজি) আমদানি সহজীকরণ ইত্যাদি আলোচনায় প্রাধান্য পায়। মন্ত্রী পর্যায়ের ৫ম বাংলাদেশ-তুরস্ক যৌথ অর্থনৈতিক কমিশনের পরবর্তী সভা এ বছর নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে বলে তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বৈঠকে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের জন্য তুরস্কের সহযোগিতার বিষয়টিও বিশেষ গুরুত্বের সাথে আলোচিত হয়। রোহিঙ্গাদের সাহায্যার্থে সব ধরনের সহযোগিতার জন্য পররাষ্ট্র সচিব বাংলাদেশের পক্ষে তুরস্ক সরকারকে ধন্যবাদ জানান। বাস্তচ্যুত রোহিঙ্গাদের নিরাপদ ও দ্রুত প্রত্যাবাসনে দু’দেশ জাতিসংঘসহ সকল আন্তর্জাতিক ফোরামে একযোগে কাজ করবে মর্মে দু’পক্ষ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। বাংলাদেশ-তরস্কের মধ্যে পররাষ্ট্র দপ্তরের সচিব পর্যায়ের পরবর্তী বৈঠক আগামী বছর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর