× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার

ক্যারিবিয়ান লীগে দল পেলেন আফিফ

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২৪ মে ২০১৯, শুক্রবার, ৯:৪৩

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (সিপিএল) দল পেলেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। পঞ্চম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ক্যারিবীয় ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসরে ডাক পেলেন এ তরুণ অলরাউন্ডার। আগামী ৪ঠা সেপ্টেম্বর শুরু হবে সিপিএলের সপ্তম আসর। গত বুধবার সিপিএলের খেলোয়াড় ড্রাফট অনুষ্ঠিত হয়। এবারের ড্রাফটে একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে দল পেয়েছেন আফিফ। সিপিএলে ড্রাফটে রেকর্ড ২০ দেশের পাঁচ শতাধিক খেলোয়াড়দের নাম রাখা হয়। এর মধ্যে বাংলাদেশের ১৯ জন ক্রিকেটারের নাম ছিল। কিন্তু ড্রাফটে শুধুমাত্র আফিফ হোসেনকে দলে টানে সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস পেট্রিয়টস।
গত মৌসুমে একই দলে খেলেছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও মেহেদী হাসান মিরাজের পর পঞ্চম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের টি-টোয়েন্টি লীগে ডাক পেলেন আফিফ। জাতীয় দলের হয়ে মাত্র একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন ১৯ বছর বয়সী আফিফ। গত বছরের শুরুতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একমাত্র টি-টোয়েন্টি খেলেন তিনি। সে ম্যাচে ব্যাট হাতে শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন আফিফ। আর বল হাতে দুই ওভারে ২৬ রান দিয়ে এক উইকেট নেন তরুণ এ অফস্পিনার। ওই ম্যাচে ৫৩ রান করা কুশাল মেন্ডিসকে সাজ ঘরে ফেরান আফিফ। যদিও ম্যাচে বাংলাদেশ ৬ উইকেটে হার দেখে। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) সবশেষ আসরে আফিফ খেলেছেন সিলেট সিক্সার্সের হয়ে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সব মিলিয়ে ৩১ ম্যাচে ১২৩.২৪ স্ট্রাইক রেটে আফিফের সংগ্রহ ৫০৯ রান। বল হাতে নিয়েছেন ১৫ উইকেট। ২০১৮ আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়ের পুরস্কার পান আফিফ। আসরে ৬ ম্যাচে ব্যাট হাতে ২৭৬ রান করেন এবং বল হাতে ৮ উইকেট তুলে নেন আফিফ হোসেন। কানাডার বিপক্ষে ১০ ওভার বল করে ৪৩ রানে ৫ উইকেট নেন আফিফ। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১৬ ম্যাচে আফিফের সংগ্রহ ৭১৯ রান। প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে ৪টি সেঞ্চুরি পেয়েছেন তিনি। ১৬ ম্যাচে বল হাতে আফিফের শিকার ১৮ উইকেট। সেরা বোলিং ৭/৬৬। সিপিএলের খেলোয়াড় ড্রাফটে অনেক তারকা ক্রিকেটারের প্রতি আগ্রহ দেখায়নি ফ্র্যাঞ্চাইজিরা। সাকিব আল হাসান, রশিদ খান, জোফরা আর্চার, ক্রিস লিনদের মতো তারকা ক্রিকেটারদের টানেনি কোনো দল। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে অভিষেকে চমক দেখান আফিফ হোসেন। ২০১৬’র ডিসেম্বরে বিপিএল অভিষেকের চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে বল হাতে পাঁচ উইকেট নেন রাজশাহী কিংসের ১৭ বছর ৭২ দিন বয়সী স্পিনার আফিফ। এতে আফিফ গড়েন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সবচেয়ে কমবয়সী খেলোয়াড় হিসেবে পাঁচ উইকেট শিকারের কীর্তি।  এতে আফিফ ভঙে দেন পাকিস্তানি তারকা জিয়া উল হকের রেকর্ড। ২০১২ সালে পাকিস্তানের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসরে লাহোর লায়ন্সের হয়ে পাঁচ উইকেট নেন ১৭ বছর ১০৯ দিন বয়সী জিয়া।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর