× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুন ২০১৯, রবিবার

ত্রিশালে সাজ সাজ রব

ষোলো আনা

খালিদ মাসুদ, ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) থেকে | ২৫ মে ২০১৯, শনিবার, ৯:৪৩

আজ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২০তম জন্মবার্ষিকী। এ উপলক্ষে কবির কৈশোর স্মৃতিবিজড়িত ত্রিশালে নেয়া হয়েছে নানা আয়োজন। কবি নজরুল ইসলাম ১৯১৪ সালে ত্রিশালে আগমন করেন এবং প্রায় পৌনে দু’বছর অধ্যয়ন করেন সেখানে। আবার কাউকে কিছু না বলেই চলে যান এই ত্রিশাল ছেড়ে।

অনুষ্ঠানমালার মধ্যে রয়েছে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বইমেলা ও নজরুল গ্রামীণ মেলা। এ ছাড়াও কবির জায়গীরদার ত্রিশাল নামাপাড়া বিচুতিয়া বেপারীবাড়ী নজরুল স্মৃতিকেন্দ্র ও কাজির শিমলা দারোগা রফিজ উল্লাহর বাড়িতে নজরুল স্মৃতি কেন্দ্রে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

নজরুল জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিগত বছরগুলোর মতো চলতি বছরও ত্রিশাল প্রেস ক্লাব নজরুল স্মরণিকা প্রকাশ করছে। ওদিকে, ত্রিশালের নামাপাড়া বটতলায় প্রতিষ্ঠিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও পৃথকভাবে তিন দিনব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠান মালার আয়োজন করেছে।

নজরুল একাডেমি মাঠে বরাবরের মতো এবারো স্থানীয় ও দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিপুল সংখ্যক দোকানি পসরা সাজিয়ে বসেছেন। সার্বিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে প্রয়োজনীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে।

১৯৬৪ সাল থেকে ত্রিশালে নজরুল জন্মজয়ন্তী পালিত হয়ে আসছে। ত্রিশালে কবির স্মৃতিকে ধরে রাখতে দুখুমিয়া বিদ্যানিকেতন, দরিরামপুর হাই স্কুল যা বর্তমানে নজরুল একাডেমি, কাজির শিমলা নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়, নজরুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়।
এ ছাড়া কবিকে ভালোবেসে ত্রিশালে কবির নামে ক্লাব, সংগঠনসহ অনেক প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর