× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুন ২০১৯, রবিবার

বাঙালি-অবাঙালি বিভেদ তৈরি করে বিতর্কে মমতা

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ৩১ মে ২০১৯, শুক্রবার, ১১:০৫

নির্বাচনের ফলাফলে মানুষ ঔদ্ধত্যের জবার দেবার পরও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায়ের মানসিকতার এতটুকু বদল ঘটেনি বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন। আর তাই এখনও তিনি বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে বাঙালি-অবাঙালি বিভেদ তৈরির চেষ্টা করছেন। বৃহষ্পতিবার উত্তর ২৪ পরগণার ভাটপাড়ায় একদল বিজেপি সমর্থকের বিরুদ্ধে বহিরাগতের তত্ত্ব তুলে ধরে মমতা বলেছেন, এরা সব বহিরাগত। বাংলার স্থানীয় লোক নয়। এমনকি তিনি এও বলেছেন, আমাদের খাবে, আমাদের পরবে, আবার গন্ডগোল করবে। বেঁচে আছ আমাদের জন্য। এরপরেই সরগরম হয়ে উঠেছে রাজ্য রাজনীতি। বিজেপির অভিযোগ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রাদেশিকতার রাজনীতি করছেন।
বৃহষ্পতিবার নৈহাটি যাবার পথে জয় শ্রীরাম ধ্বনি শুনে  বারে বারে মেজাজ হারিয়েছেন তিনি। এর আগেও একবার যাওয়ার পথে বিজেপির কর্মীদের জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেয়া নিয়ে মমতা এতটাই ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন যে, গাড়ি থেকে নেমে যারা সেই ধ্বনি দিচ্ছিল তাদের তাড়া করেছিলেন। পুলিশকে দিয়ে কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করিয়েছিলেন। এর পরই নির্বাচনী প্রচারে এসে নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ অভিযোগ করেছিলেন, বাংলায় জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেয়ায় দিদির প্রবল আপত্তি। বৃহষ্পতিবারও দেখা গেছে, জয় শ্রীরাম ধ্বনি শুনে মমতা বারে বারে গাড়ি থেকে নেমে মেজাজ হুমকি দিয়েচেন।  তাঁর গাড়িতে হামলার অভিযোগ তুলে মমতা পুলিশকে ঘরে ঘরে ঢুকে ‘নাকা চেকিং’-এর নির্দেশও দিয়েছেন। এ দিন নৈহাটিতে দলীয় ‘সত্যাগ্রহ’ কর্মসূচিতে যোগ দিতে তিনি যখন যাচ্ছিলেন তখন ভাটপাড়ায় রাস্তার ধার থেকে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিয়েছে কিছু মানুষ।  এর পরেই গাড়ি থেকে নেমে মমতা তেড়ে গিয়েছেন যারা ধ্বনি দিচ্ছিল তাদের  দিকে। এই সময় মমতা বলেছেন, আমাদের খাবে, আমাদের পরবে, আবার গন্ডগোল করবে! বেঁচে আছ আমাদের জন্য।’ এর পরেই তিনি পুলিশ কর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন, সবার নাম নোট করে নিন। ঘরে ঘরে নাকা চেকিং করুন। যারা গন্ডগোল করেছে সবাইকে ধরুন। জানা গেছে,  ভাটপাড়ার ওই এলাকায় মূলত অবাঙালিদের সংখ্যাধিক্য। মমতা চিৎকার চেঁচামেচি করে তাঁর গাড়িতে উঠতেই ফের ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি ,শুনে ফের গাড়ি থেকে নেমে তেড়ে গিয়ে বলেছেন, আয় সামনে আয়। বুকের পাটা থাকলে সামনে এসে বল। মমতার অভিযোগ, বিজেপির ফেট্টি বেঁধে আমাকে গালিগালাজ করছে, আমার গাড়িতে হামলা চালাচ্ছে। তিনি বলেচেন,  এদের আমরা যতœ করে রেখে দিয়েছি। এরা আউট সাইডার। বাংলার স্থানীয় লোক নয়। একই ঘটনা ঘটেছে এ দিন নৈহাটিতেও। বিজেপির সন্ত্রাসে ঘরছাড়া তৃণমূল কর্মীদের ঘরে ফেরানোর ধরণা মঞ্চে যাওয়ার পথে  ক্ষুব্ধ মমতাকে গাড়ি থেকে নেমে মমতাকে বলতে শোনা গিয়েছে, চামড়া গুটিয়ে ছেড়ে দেব। ডাকাত ক্রিমিনাল। সব তাড়িয়ে ছাড়ব। নৈহাটিতে সভামঞ্চ থেকে এই প্রসঙ্গ তুলে মমতা বলেছেন,  কয়েকটা জুটমিলের সামনে আমার গাড়রর উপর বিজেপির ফেট্টি বাঁধা কয়েক জন হামলা চালানোর চেষ্টা করে। যাদের আমরা খাওয়াই, পরাই, থাকতে দিই, ভালবাসি, তারাই এমন করছে। তিনি বলেছেন, গুলির বিরুদ্ধে লড়াই করে বেঁচে থাকব। আমরা মোদীর দয়ায় বেঁচে নেই। মোদীর সরকার নির্বাচিত। আমরাও নির্বাচিত সরকার। এ সব মানব না। সেইসঙ্গে তিনি এদিন ফের বলেছেন, বিজেপিকে আমি ঘৃণা করি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর