× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার

‘ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধে পুরো মধ্যপ্রাচ্যই পুড়বে’

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২ জুন ২০১৯, রবিবার, ৯:২৮

‘ইরানের বিরুদ্ধে কোনো যুদ্ধ কেবল ইরানের সীমান্তের মধ্যেই আটকে থাকবে না। তা পুরো মধ্যপ্রাচ্যেই ছড়িয়ে পড়বে। আক্রান্ত হবে পুরো অঞ্চল। যুক্তরাষ্ট্র এটা জানে।’ শুক্রবার এমন সতর্কতামূলক মন্তব্য করেছেন লেবাননের সশস্ত্র রাজনৈতিক দল হিজবুল্লাহর প্রধান হাসান নাসারাল্লাহ।
তিনি বলেছেন, ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু হলে তাতে পুরো অঞ্চলই পুড়বে। ধ্বংস হয়ে যাবে এই অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের সকল স্বার্থ। শুক্রবার মক্কায় অনুষ্ঠিত গালফ কো-অপারেশন কাউন্সিলের (জিসিস), অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কনফারেন্স ও আরব লীগের এক জরুরি বৈঠকের দিকে ইঙ্গিত করে টেলিভিশনে প্রচারিত এক বক্তব্যে এসব কথা বলেন নাসারাল্লাহ।
মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের ক্রমবর্ধমান প্রভাব বিস্তার থামাতে সম্মেলনটির আহ্বান জানায় সৌদি আরব। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যকার উত্তেজনা বাড়ছে এমন সময় এই সম্মেলনটির আহ্বান জানায় সৌদি। সম্মেলনে, ইরানের ‘সন্ত্রাসী কার্যক্রম’ থামাতে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান
উল্লেখ্য, গত বছর ইরানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক পারমাণবিক চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে বের করে নেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপর থেকেই দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্কের তীব্র অবনতি ঘটতে থাকে। ইরানের বিরুদ্ধে একের পর এক নিষেধাজ্ঞা জারি করে ট্রাম্প প্রশাসন। ব্যাপক আকারে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ইরানের তেল বাণিজ্য। পাশাপাশি ইরানে রেভুলিউশনারি গার্ড কর্পসকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়। হুমকির নামে অঞ্চলটিতে মোতায়েন করা হয় মার্কিন সেনা। এদিকে, হিজবুল্লাহকেও সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ), জিসিসি ও আরব লীগ। ইরান সমর্থিত দলটি পূর্বে ইসরাইলের বিরুদ্ধে বহু যুদ্ধ লড়েছ। এদিকে, সতর্কতামূলক বক্তব্য দিলেও নাসারাল্লাহ এটাও বলেন যে, মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধ শুরুর বিষয়টি বেমানান। কেননা, যুক্তরাষ্ট্র জানে, এমনটা হলে তাদের চড়া দাম দিতে হবে। নাসারাল্লাহর বর্তমান অবস্থান কারো জানা নেই। তিনি জানিয়েছেন, হিজবুল্লাহর কাছে মধ্যপ্রাচ্যের চেহারা বদলে দেবার জন্য প্রয়োজনীয় ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে।

এছাড়া, তিনি ট্রা¤প প্রশাসন প্রস্তাবিত ইসরাইল-ফিলিস্তিন শান্তিচুক্তিটিও প্রত্যাখ্যান করেছেন। বলেছেন, এটা একটি ফাঁকা চুক্তি। একটি ঐতিহাসিক অপরাধ।
ট্রা¤প চুক্তিটিকে শতকের সেরা চুক্তি বলে আখ্যায়িত করেছেন। তবে ফিলিস্তিন্সসহ অনেক মুসলিম দেশ চুক্তিটি প্রত্যাখ্যান করেছে। শুক্রবার ফিলিস্তিনিদের পক্ষে ইরান বার্ষিক সমাবেশ হয়েছে। তাতে যোগ দিয়েছেন হাজারো মানুষ। চুক্তিটি আগামী মাসে ব্রিমিংহামে এক সম্মেলনে প্রকাশ করার কথা রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
২ জুন ২০১৯, রবিবার, ৪:৩৮

Trump has no soil under his feet to support him. So, he will not start war. Don't worry.

অন্যান্য খবর