× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার

অস্ট্রেলিয়াকে ৩৬ রানে হারালো ভারত

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৯ জুন ২০১৯, রবিবার, ১১:৫১

অস্ট্রেলিয়াক ৩৬ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে ভারত। ওভালে আগে ব্যাট করতে নেমে শেখর ধাওয়ানের সেঞ্চুরিতে ৫ উইকেট ৩৫২ রান সংগ্রহ করে বিরাট কোহলি বাহিনী। জবাবে ইংনিসের শেষ বলে ৩১৬ রানে অলআউট হয় বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ভারতের জাসপ্রিত বুমরাহ ও ভুবেনশ্বর কুমার তিনটি করে উইকেট দখল করেন। ধারার বাইরে গিয়ে হাফ সেঞ্চুরি করে ওয়ার্নার। তার ৮৪ বলে ৫৬ রানেই ইংনিসেই মুলত ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় অস্ট্রেলিয়া। মন্থর ব্যাটিং করে ম্যাচে কোনো ভুমিকা রাখতে পারেননি ৭০ বলে ৬৯ রান স্টিভেন স্মিথও।  
বিশ্বকাপের সবেচেয়ে ভয়ঙ্কর টপ অর্ডার ভারতের।
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করে তার খানিকটা প্রমাণ দিয়েছিলেন রোহিত শর্মা। গতকাল পয়মন্ত ভেন্যু ওভালে নিজের সামর্থ্য দেখালেন আরেক ওপেনার শেখর ধাওয়ান। তুলে নিলেন ক্যারিয়ারের ১৭তম ও ওভালে তৃতীয় সেঞ্চুরি। তার ব্যাটে ভর করেই বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়াকে এক লজ্জার রেকর্ড উপহার দিলো ভারত। বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এক ইনিংসে (৩৫২/৫) এত রান করতে পারেনি আর কোনো দল। রেকর্ড হয়েছে ভারতেরও। বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভারতের এটিই সর্বোচ্চ সংগ্রহ। ১৯৮৭ সালে দিল্লিতে ছয় উইকেট হারিয়ে ২৮৯ রান সংগ্রহ  করেছিল ভারত। ভারতের শুরু দেখে অবশ্য বোঝার উপায় ছিল না, অস্ট্রেলিয়াকে এত বড় টার্গেট দিতে পারবে তারা। প্রথম ১০ ওভারে রান উঠল মাত্র ৪১। বাউন্ডারিও মাত্র চারটি, যার মধ্যে তিনটিই আবার এক ওভারে। কিন্তু ১০ ওভার পার হতেই হাত খুলতে শুরু করেন দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান। দুজনের মধ্যে বেশি আগ্রাসী ছিলেন ধাওয়ানই। ৫৩ বলে ফিফটি পূর্ণ করা ধাওয়ান থামেন ওয়ানডেতে নিজের ১৭তম সেঞ্চুরি উদযাপন করেই। যার তিনটি এই ওভাল স্টেডিয়ামে। ধাওয়ান ১০৯ বলে ১১৭ রান করে আউট হন মিচেল স্টার্কের বলে। আরেক ওপেনার রোহিত ফিফটির আগে থামেননি। আরও বেশি ভয়ংকর হয়ে ওঠার আগে কোল্টার-নাইল তাকে ফিরিয়েছেন ৫৭ রানে। অবশ্য ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারেই ফিরতে পারতেন তিনি, যদি না শর্ট মিড উইকেটে ক্যাচ ছাড়তেন এই কোল্টার-নাইল। ১২৭ রানের উদ্বোধনী জুটিতেও নয়া রেকর্ড গড়েছেন এই দুই ওপেনার। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে উদ্বোধনী জুটিতে ২৯ ইংনিসে সর্বোচ্চ ১১৫২ রান করেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক দুই কিংবদন্তি গর্ডন গ্রিনিজ ও ডেসমন্ড হেইন্স। এই রেকর্ড ভেঙে ২২ ইংনিসে রোহিত শর্মা ও শেখর ধাওয়ানের সংগ্রহ ১২৭৩ রান। ভারতীয় ওপেনারদের এটি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ষষ্ঠ সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপের ৮৯ ম্যাচে উদ্বোধনী জুটিতে মাত্র তৃতীয় সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ। এরআগে ১৯৯২ সালে ইংল্যান্ডের গ্রাহাম গুচ ও ইয়ান বোথাম, ২০০৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার গ্রায়েম স্মিথ ও এবি ডি ভিলিয়ার্স অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে উদ্বোধনী জুটিতে সেঞ্চুরি জুটি উপহার দেন। রেকর্ড গড়ে রোহিত ফিরলেও ভারতের রানের চাকা থেমে থাকেনি। বরং অধিনায়ক কোহলি এসে নিজের হাতে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ তুলে নেন। আগের ম্যাচে খুব বেশি রান করার সুযোগ পাননি, গতকাল যেন সেটা পুষিয়ে দিলেন ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে সেরা ব্যাটসম্যান। ৭৭ বলে ৮২ করে ফিরেছেন একদম শেষ ওভারে। বড় সংগ্রহের আশায় ৪ নম্বরে লোকেশ রাহুলের পরিবর্তে ভারত নামিয়েছিল হার্ড হিটার হার্দিক পান্ডিয়াকে। নিজের কাজটা ঠিকই করেছেন এই অলরাউন্ডার। ৪ চার ও ৩ ছয়ে খেলেছেন ২৭ বলে ৪৮ রানের ঝড়ো ইনিংস। শেষ দিকে নেমে ১৪ বলে ২৭ রানের ইংনিস খেলেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনিও।  শেষ ওভারে লোকেশ রাহুলের তিন বলে ১১ রানের ইংনিসে ৩৫২ রানের বিশাল পুঁজি পায় ভারত।  আগের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৫ উইকেট পাওয়া অজি পেসার মিচেল স্টার্ক গতকাল উইকেট পেলেন মাত্র ১টি। বাকি দুই পেসার প্যাট কামিন্স ও কোল্টার-নাইল ১টি করে উইকেট পেলেও ত্রাস ছড়াতে পারেননি ভারতের ব্যাটিং লাইন-আপে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
রসিদ আলি
১০ জুন ২০১৯, সোমবার, ১০:১৪

আজ ভিখারী বিবেকচোদার খুব দুক্ষের দিন বেচারা নিজের নামটাই যে পালটে ফেলল এর পর জাত কুলটাও বোধহয় ফেলে দেবে

অন্যান্য খবর