× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার

ভাঙ্গুড়ায় বৃদ্ধ খুন রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার

বাংলারজমিন

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি | ১২ জুন ২০১৯, বুধবার, ৮:১৪

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় গরুর ক্ষেত খাওয়াকে কেন্দ্র করে আবুল কালাম (৫০) নামে এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে প্রতিবেশী। গতকাল সকাল সকার ১০টায় পাবনা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। আবুল কালাম উপজেলার চাঁনপুর গ্রামের মৃত গোলাপ হোসেনের পুত্র ও পেশায় একজন কৃষক। এদিকে ঘটনার পর হত্যাকারী সাইফুল ও তার পরিবারের সদস্যরা গ্রাম থেকে পালিয়ে গেলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাদের বাড়িঘর ভাঙচুর করে।
প্রত্যক্ষদর্শী শাহাদত হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামে আবুল কালামের পাটের জমিতে একই গ্রামের রানার একটি গরু প্রবেশ করে পাটক্ষেত নষ্ট করে। পরে আবুল কালামের ছেলে আবুল বাশার গরুটি ক্ষেত থেকে এনে তাদের বাড়িতে আটকে রাখে। রানা ওই গ্রামের আমাজাদ আলীর ছেলে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সকাল আটটার দিকে ছুরি ও লাঠিসোটাসহ রানা ও তার প্রতিবেশী চাচা সাইফুল দলবল নিয়ে আবুল কালামের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় ছেলে বাশার পালিয়ে গেলে তার পিতাকে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দেয় তারা।
একপর্যায়ে সাইফুল ছুরি দিয়ে আবুল কালামের বুকে আঘাত করে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে রেখে চলে যায়। পরে কালামের পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তখনই তাকে পাবনা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আবুল কালাম মারা যান। এদিকে ঘটনার দিন দুপুর দেড়টার দিকে চাটমোহর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সজীব শাহরিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান। সেখানে তার উপস্থিতিতে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী সাইফুলের বাড়িঘর ভাঙচুর করে। পরে পুলিশের বাধায় এলাকাবাসী শান্ত হয়। পুলিশ সাইফুলের ঘর থেকে রক্তমাখা ছুরি ও লুঙ্গি জব্দ করেছে।
ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদ রানা জানান, হত্যার বিষয়টি খানমরিচ ইউপি চেয়ারম্যান আছাদুর রহমান থানায় জানিয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর