× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ আগস্ট ২০১৯, রবিবার

মোদির বিমানকে আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে পাকিস্তান

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১২ জুন ২০১৯, বুধবার, ৯:২৬

কিরগিজস্তানে সাংহাই কো-অপারেশন কনফারেন্স বা এসসিও সম্মেলনে যোগ দেয়ার জন্য পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি পেয়েছে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বহনকারী বিমানকে। নয়াদিল্লির এক বিশেষ অনুরোধে এই অনুমতি দিয়েছে পাকিস্তান কর্তৃপক্ষ। চলতি বছরের গত ২৬শে ফেব্রুয়ারি বালাকোট হামলার পর ভারতীয় বিমানের জন্য পাকিস্তানের আকাশসীমা বন্ধ করে দেয় ইসলামাবাদ। কিন্তু কিরগিজস্তানের রাজধানী বিশকেকে ১৩-১৪ই জুন অনুষ্ঠিত হবে এসসিও সম্মেলন। এই সম্মেলনে যোগ দেয়ার জন্য পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহার করেই যেতে হবে মোদিকে। এ খবর দিয়েছে দ্য সাউথ এশিয়ান মনিটর ও টাইমস অব ইন্ডিয়া।

খবরে বলা হয় ইসলামাবাদ জানিয়েছে, মোদির বিমান তাদের আকাশপথ ব্যবহার করতে পারবে। এর ফলে বিমানের রুট বদলের প্রয়োজন পড়বে না। ৯ই জুন ইসলামাবাদকে এই আবেদন জানিয়েছিল নয়াদিল্লি।

ভারতীয় বিমানের জন্য আকাশপথে নিষেধাজ্ঞা জারি করার পর বিশেষ অনুরোধে অনুমতি দেয়ার ঘটনা এই প্রথম নয়।
এর আগে ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের জন্যও একবার আকাশপথ খুলে দিয়েছিল তারা।

উল্লেখ্য, ভারতের বেশিরভাগ ফ্লাইট সাধারণত পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহার করে পরিচালিত হতো। কিন্তু তা বন্ধ করে দেয়ায় অনেক ঘুর পথে যেতে হচ্ছে ভারতীয় বিমানগুলোর। এতে খরচ পড়ে বেশি। ফলস্বরূপ, হাজার হাজার যাত্রী ফ্লাইট বাতিল হচ্ছে। তাছাড়া টিকিটের দামও বেড়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে অবশ্য জানানো হয়েছিল, পাকিস্তানের এই নিষেধাজ্ঞা গত ৩০শে মে শেষ হয়ে যাবে। তবে পরবর্তীতে তা আগামী ১৪ই জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

পাকিস্তানের ওই নিষেধাজ্ঞার ফলে গত তিন মাস ধরে প্রতিদিন প্রায় ৩৫০টি ফ্লাইট সমস্যায় পড়ছে। ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সসহ বেশ কয়েকটি সংস্থার ফ্লাইট বাতিলও করা হয়েছে। অতিরিক্ত সময় উড্ডয়নের কারণে এয়ার ইন্ডিয়ার প্রতিদিন লোকসান হচ্ছে ৫-৭ কোটি রুপি। উড্ডয়ন বাতিল করায় ফি না পাওয়ার কারণে পাকিস্তান কর্তৃপক্ষও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর