× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার

বৃষ্টিতে ব্রিস্টলে মন খারাপের দিন

ইংল্যান্ড থেকে

স্পোর্টস রিপোর্টার, ব্রিস্টল থেকে | ১২ জুন ২০১৯, বুধবার, ১০:০২

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের ভিন্ন শহর থেকে দলে দলে টাইগারভক্তরা ছুটে এসেছেন ব্রিস্টলে। স্থানীয় টাইগারভক্তের সংখ্যাও কম নয়। মাশরাফি-সাকিবদের সমর্থন দিতে বাংলাদেশ থেকে ছুটে এসেছেন অনেকেই। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দেখার জন্য সেকি উচ্ছ্বাস-উৎকণ্ঠা তাদের! কেউ বাঘ নিয়ে এসেছেন, কেউ জাতীয় পতাকা। কিন্তু তাদের সেই উত্তাল ভালোবাসার উত্তাপকে জলে ভাসিয়েছে ব্রিস্টলের বৃষ্টি। তারা আগে থেকেই জানতেন, এখানে ম্যাচের দিন মেঘের আনাগোনা থাকবে। কিন্তু দেশের ক্রিকেটকে সমর্থন দিতে ভিজতে ভিজতেই চলে আসেন মাঠে। তবে তাদের খেলা দেখার উৎকণ্ঠা যত বেড়েছে, তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে বৃৃষ্টি।
অবশেষে মন খারাপ করেই স্টেডিয়াম থেকে বেরিয়ে গেছেন তারা। স্থানীয় সময় বেলা দেড়টায় ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন আইসিসির ম্যাচ রেফারি। ভীষণ ভেঙে পড়েন টাইগারভক্তরা। বৃষ্টিতে ভিজে ব্রিস্টলের প্রেসবক্সের নিচে দাঁড়িয়ে ছিলেন খাইরুল ইসলাম। ওয়েলসের কার্ডিফ থেকে স্ত্রী মনোয়ারা বেগমকে নিয়ে খেলা দেখতে আসেন তিনি। মাঠ ছাড়ার আগে বলেন, ‘ম্যাচটি হলে আসলে বাংলাদেশের জন্য ভালো হতো। আমরা বৃষ্টিতে ভিজেছি বা টিকিট কেটে এত দূর এসে খেলা দেখতে পারিনি তাতে খুব বেশি মন খারাপ নেই। কিন্তু বাংলাদেশ জিতলে অনেকটা নিরাপদ থাকতো বিশ্বকাপে টিকে থাকার জন্য। এখন শ্রীলঙ্কা এক পয়েন্ট পেয়ে গেছে। এতে আমাদের ক্ষতিই হলো।’
খাইরুল ইসলামের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমও ক্রিকেটপাগল। অনেক আগে থেকেই টিকিট কিনে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলেন মাঠে এসে খেলা দেখবেন। কার্ডিফ থেকে সেই সকালেই ব্রিস্টলে এসেছেন স্বামীর সঙ্গে। ম্যাচ না হওয়ায় খুব হতাশ তিনি। ব্রিস্টল স্টেডিয়ামের ড্রেনেজ ব্যবস্থা নিয়ে সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আসলে ম্যাচটা হওয়া আমাদের জন্য খুবই দরকার ছিল। শ্রীলঙ্কাকে আমাদের হারানো সম্ভব ছিল। কিন্তু ম্যাচ না হওয়াতে সেটা  হলো না। আর কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনের মতো নয় এই স্টেডিয়াম। এখানে অনেক ব্যবস্থাই অপর্যাপ্ত। মনটা আসলেই অনেক খারাপ হয়ে গেল।’
এটা সত্যি যে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে বাংলাদেশের আগের তিন ভেন্যুর ছিল অসাধারণ ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনা। বিশেষ করে কার্ডিফ ও ওভালের মাঠ থেকে শুরু করে প্রেসবক্সে ছিল সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা। কিন্তু ব্রিস্টল কাউন্টি ক্রিকেট গ্রাউন্ড বেশ ছোট। এমনকি এখানে সংবাদকর্মীদের কাজ করার জায়গাও অনেক কম।  প্রেসবক্সে বসে কাজ করা বেশ কঠিন। চেয়ার ও লেখার জন্য দেয়া টেবিল এতো সরু যে, মনে হয় যেন কোনো লোকাল বাসের সিট! এছাড়াও ইন্টারনেট ব্যবস্থা ভালো ছিল না। অন্যদিকে স্টেডিয়ামের গ্যালারি জুড়ে কোথাও নেই একটু শেড। তাই দর্শকরা মাঠে অপেক্ষা করেছেন বৃষ্টিতে ভিজেই। কয়েকজন আশ্রয় নেন প্রেসবক্সের নিচে। তাও বৃষ্টিতে রক্ষা পাননি। ব্রিস্টলে প্রায় ২০ বছর ধরে থাকা তিন বাংলাদেশি বন্ধুও এমন ব্যবস্থা নিয়ে বেশ হতাশ। এমনকি এখানে নিরাপত্তায় থাকা বৃটিশকর্মী মারুন ডেসার বলেন, না, আমি নিজেই তোমাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি। এমন বৃষ্টি হবে তা ভাবিনি। যাই হোক দারুণ একটি খেলা মিস করলাম। সাকিব, মাশরাফির ভক্ত আমি। ভেবেছিলাম আজ ওদের খেলা সরাসরি দেখবো কিন্তু হলো না।
‘ভালো আছেন সাকিব আল হাসান’
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আগের ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সময় ঊরুর সামনের দিকে চোট পেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। তখন মাঠে প্রাথমিক চিকিৎসার পর খেলা চালিয়ে গেছেন, সেঞ্চুরিও করেছেন। সেই চোটের কারণে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে তার খেলার সম্ভাবনা ছিল বেশ ক্ষীণ। এরই মধ্যে তার চোটের স্থানে স্ক্যান করানো হয়েছে। তাতে জানা গেছে, ভালো আছেন সাকিব। সংবাদ সম্মেলনে প্রধান কোচ স্টিভ রোডস জানান, পরের ম্যাচে সাকিবের খেলা নিয়ে বেশ আশাবাদী তিনি। রোডস বলেন, ‘হ্যাঁ, ওর ছোটখাটো ইনজুরি ছিল। তবে আমি আশা করি, বাংলাদেশের পরের ম্যাচে সাকিব মাঠে নামতে পারবে।’ এছাড়াও দলের সঙ্গে থাকা নির্বাচক হাবিবুল বাশার নিশ্চিত করেছেন, সাকিবের অবস্থা ইতিবাচক। তিনি বলেন, ‘সাকিব এখন বেশ ভালো আছে। আশা করি, ও পরের ম্যাচেই খেলতে পারবে।’
সোমবার ব্রিস্টলে বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে এসেছিলেন সাকিব। তবে ব্যাটিং-বোলিং করেননি। ম্যাচের আগের দিন এমনিতে খুব একটা অনুশীলন করেন না সাকিব। তাই তার ইনজুরির গভীরতা আঁচ করা ছিল মুশকিল। তবে সন্ধ্যার দিকে দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার তার ইনজুরি সমস্যা থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এছাড়াও সেই সময় তাকে নিয়ে ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন বলেছিলেন, ‘গত ম্যাচের পর আমরা ওর অবস্থা বুঝতে চেষ্টা করছিলাম। আজ ব্যথা ও অস্বস্তিবোধ করায় স্ক্যান করানো হয়েছে। তাতে গ্রেড ওয়ান স্ট্রেইন ধরা পড়েছে। আপাতত খুব গুরুতর কিছু মনে করা হচ্ছে না। কাল খেলতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। তবে সাকিব নিজে কেমন অনুভব করছে, ঝুঁকি থাকবে কিনা, এসব আলোচনা করে তার খেলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’ এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সেরা পারফরমার সাকিব। ৩ ম্যাচে ২৬০ রান করে আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী তিনি। উইকেট নিয়েছেন তিনটি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর