× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার

পরীমনির প্রেম বাগদানে ভাঙন

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১২ জুন ২০১৯, বুধবার, ১০:১৩

মনে হয় কপাল পুড়লো পরীমনির। জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরীমনি সংসার বাঁধতে চেয়েছিলেন। বাগদান পর্বও সম্পন্ন করেছিলেন। কিন্তু মাঝপথে এসে বাগদান ভেঙে গেছে। কেন ভাঙলো? নানা কথা চাউর হয়েছে বাজারে। যদিও তামিম হাসান কিংবা পরীমনির কেউই মুখ খুলছেন না। পরীমনি সন্ধ্যার দিকে মানবজমিনকে বলেন, সময়ই বলে দেবে। আমি এটা একা বলতে পারব না। তাহলে দুজনকেই বলতে হবে। একতরফা বলা ঠিক হবে না। শুধু যেটুকু না বললেই নয়, সেটা হলো আমার কাজকে কেউ যদি অসম্মান করে, সেখানে আমি কখনো আপস করব না।
চিত্রনায়িকা পরীমনি আর বিনোদন সাংবাদিক তামিম হাসান দুই বছর ধরে চুটিয়ে প্রেম করেছিলেন। এ গল্প প্রায় সবারই জানা। ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামসহ সামাজিক মাধ্যমে নিয়মিত ছবি দিতেন  দু’জনই। এর মধ্যে গত ১৪ এপ্রিল তাদের বাগদান হয়। দুই পরিবারের আত্মীয়-স্বজন ছিলেন সেই বাগদান অনুষ্ঠানে। বেশ জাঁকজমকপূর্ণ ছিল অনুষ্ঠানটি। বাগদানের পর গণমাধ্যমে পরীমনি বলেছিলেন সামনের যেকোনো ১৪ই এপ্রিল তারা বিয়ে করবেন।

কিন্তু বিনোদনপাড়ায় রটেছে অন্য খবর। পরীমনি তার ফেসবুক পেজ, ইনস্টাগ্রাম থেকে বাগদানসহ তাদের দুজনের বিভিন্ন সময়ে তোলা ছবিগুলো সরিয়ে ফেলেছেন। অনেক দিন দুজনের নতুন কোনো ছবিও দেননি সামাজিক মাধ্যমে। আর তাতেই সন্দেহের মাত্রা বাড়তে থাকে। তবে বিনোদনপাড়ায় মানুষজন সন্দেহ করছেন পরীমনি আর তামিমের বাগদান ভেঙ্গে গেছে। আর বিয়ে পর্যন্ত গড়াবে না তাদের সম্পর্ক। দু’জনের  ঘনিষ্ঠজনরা বলছেন, মাস দেড়েক হয় তাদের সম্পর্ক নেই। আগের মতো কারো সঙ্গে কারো কথা হচ্ছে না, দেখা হচ্ছে না।

এসব বিষয়ে পরীমনি বলেন, আমি কাজকে ফোকাস করতে চাই, বয়ফ্রেন্ডের ছবি নয়। যেটা যেখানে দেয়া উচিত, আমি শুধু সেটাই দেয়ার চেষ্টা করছি এখন। দেড়মাস ধরে সর্ম্পক নেই এমন কথার উত্তরে তিনি বলেন, একসঙ্গে তো কখনোই ছিলাম না, আলাদা হওয়ার কী আছে? কাজের সঙ্গেও তো যোগাযোগ দুবছর বন্ধ রেখেছিলাম। তার মানে কি কাজ ছেড়ে দিয়েছি? তার চেয়ে নিশ্চয়ই এই বিষয়টা গুরুত্বপূর্ন না। বিয়ের ব্যাপারে এই চিত্রনায়িকা বলেন, আমি বাগদানের সময়ই আগামী কোনো এক বছরের ১৪ই এপ্রিল বিয়ের দিন ঠিক করে রেখেছিলাম। তবে বাগদান না হলে কোনোভাবেই বুঝতে পারতাম না, আমি বিয়ের জন্য একদমই প্রস্তুত না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর