× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার
পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার বিরাম নেই

রাজ্যপাল বড় চার দলকে বৈঠকে ডেকেছেন

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৩ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১১:১৬

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার বিরাম নেই। মূলত তৃণমূল  কংগ্রেস আর বিজেপির মধ্যেই ঘটছে এই হিংসা। ইতিমধ্যেই  হিংসার বলি হয়েছেন ১২ জন। এ কথাই কেন্দ্রীয় সরকারকে পাঠানো রিপোর্টে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী উল্লেখ করেছেন। ইতিমধ্যেই রাজ্যপাল দিল্লিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে বৈঠকও করেছেন। তবে রাজ্য সরকারের দাবি রাজ্যপালের দেওয়া সংখ্যাটা ভুল। নিহত হয়েছেন ১০ জন। আবার বিজেপি দাবি করেছে, ইতিমধ্যেই নিহত হয়েছেন ১৫ জন।  অবশ্য নিহতের তালিকায় বিজেপির কর্মী ও নেতার সংখ্যা বেশি হলেও শাসক তৃণমূল কংগ্রেসেরও কয়েকজন নিহত হয়েছেন।
প্রতিদিনই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে রাজনৈতিক হিংসা ও নিহত হবার খবর আসছে। কিছুদিন আগেই বসিরহাটের ন্যাজাতে একদিনে তিন জন রাজনৈতিক কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে সরকারিভাবে বলা হয়েছে। রাজ্যে আইন শৃঙ্খলার অবনতির প্রশ্ন তুলে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আরজি জানিয়েছে বিজেপির রাজ্য শাখা। কলকাতায় বুধবার পুলিশ সদর দপ্তর অভিমুখে মিছিলও করেছে বিজেপি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় রাজ্যকে অ্যাডভাইসরি পাঠিয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন বিজেপি কেন্দ্রীয় সরকারকে দিয়ে রাজ্য সরকার ভাঙার চেষ্টা চালাচ্ছে। সেই সঙ্গে বিজেপির বিরুদ্ধে রাজ্যে অশান্তির পরিবেশ তৈরির অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকে রাজ্যে বেড়ে চলেছে রাজনৈতিক হিংসা। চলছে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপির মধ্যে হুঁশিয়ারি ও পাল্টা হুমকি। পরিস্থিতি প্রশমিত করতে এবার সক্রিয় হয়েছেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। তিনি রাজ্যের চারটি বড় রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চেয়েছেন।  নির্বাচন পরবর্তী হিংসা কীভাবে থামানো যায়, তা নিয়ে আলোচনা করতেই ওই বৈঠক ডাকা হয়েছে বলে রাজভবনের তরফে জানানো হয়েছে। বৈঠকে ডাকা হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস, বিজেপি, কংগ্রেস ও সিপিআইএমকে। তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র, এই চার জনকে বুধবার চিঠি দিয়েছেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। আলোচনায় বসার জন্য তাঁদের বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টেয় রাজভবনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। রাজ্যপালের প্রেস সচিব মানব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, রাজ্যে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার যে সব খবর আসছে, তার প্রেক্ষিতে রাজ্যপাল চারটি বড় রাজনৈতিক দলের একটি বৈঠক ডেকেছেন, যা নাগরিকদের স্বার্থে রাজ্যে শান্তি ও সম্প্রীতি বহাল রাখতে কাজে আসবে। জানা গেছে, প্রথমে অবশ্য সর্বদল বৈঠক ডাকার ভাবনাচিন্তা হয়েছিল। পরে অব্শ্য সেই ভাবনার বদল হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর