× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ জুলাই ২০১৯, শুক্রবার
মা ও ভাইকে বাসায় ঢুকতে বাঁধা

ব্যারিস্টার তুরিনের বিরুদ্ধে জিডি

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৪ জুন ২০১৯, শুক্রবার, ৬:৩৪

নিজ বাড়িতে মা সামসুন নাহার তসনিম ও ছোট ভাই শাহনেওয়াজ আহমেদ শিশির বাসায় ঢুকতে না পেরে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) দায়ের করা হয়েছে। শুক্রবার ছোট ভাই শাহনেওয়াজ আহমেদ শিশির ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে এই জিডি করেন। তিনি বলেন, শুক্রবার কানাডা থেকে দেশে আসার পর আমরা উত্তরার বাসায় যাই। কিন্তু বোনের নির্দেশে বাসার দারোয়ান ও আনসারগণ আমাকে প্রবেশ করতে দেয়নি। তিনি আরো বলেন, আমার আসার সংবাদ পেয়ে কাজের মেয়ে নিচে নেমে আসে এবং আমি তাকে জিজ্ঞেস করি, তুরিন আপু বাসায় আছে কিনা? তিনি আমাকে বাসায় আছে বলে জানান। পরবর্তীতে বাধ্য হয়ে বাসায় ঢুকতে না পেরে চলে আসি। এরপর উত্তরা পশ্চিম থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) দায়ের করি। জিডি নম্বর- ৭৩৮, ১৪ জুন।
এ ব্যাপারে উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি তপন চন্দ্র সাহাও জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, কানাডা প্রবাসী শাহনেওয়াজ বাসায় ঢুকতে চাইলে বোন তুরিন আফরোজ তাকে ঢুকতে দেয়নি বলে জিডিতে তিনি উল্লেখ করেছেন। এর আগেও, ২০১৭ সালের ১৯শে নভেম্বর থানায় তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে জিডি (জিডি নম্বর- ১১৮৮) করছিলেন তিনি।
এছাড়া, গত ১লা জানুয়ারি ঢাকার প্রথম যুগ্ম জজ আদালতে বাড়ি দখলের অভিযোগে তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছিলেন ছোটভাই শাহনেওয়াজ আহমেদ শিশির। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, ২০১৭ সালের ২রা মার্চ পুলিশ দিয়ে ভয় দেখিয়ে মা শামসুন নাহার এবং অন্য ভাড়াটিয়াদের বাড়ি থেকে বের করে দেন তুরিন আফরোজ। নিজেকে বাড়ির মালিক দাবি করে তুরিন বাড়ি ও জমির দলিলপত্রও দখলে নিয়ে নেন বলে অভিযোগ আনা হয়েছে মামলায়। মামলার অভিযোগে আরও বলা হয়, ভাই শিশির সম্পত্তিতে আসতে চাইলে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দেয়া হবে বলেও মাকে হুমকি দেন তুরিন আফরোজ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Zakaria
১৬ জুন ২০১৯, রবিবার, ১২:০৯

আপন ভাই বোন মা কে বাসায় ডুকতে দেয় না এরা মানুষ। ঠিক করছে! ছোট বেলা মা বাবা ওদের ইসলামের শিখা দেয় না। আজ এরকম হত নাI

Jahangir Alam
১৫ জুন ২০১৯, শনিবার, ১০:৫৪

এর চেয়ে খারাপ অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে, যখন সে ট্রাইবুনালে ছিল l

Kazi
১৫ জুন ২০১৯, শনিবার, ৬:৫৭

Probably the building built with the hard earned money of younger brother in Canada. I live in Canada and I know how hard life here. People, relatives in Bangladesh think money grows in trees here or falls from sky and we just pick up to fill in the bags.

A.karim
১৫ জুন ২০১৯, শনিবার, ১:১৮

এদের থাকে আর কি ভালো আশা করতে পারি এরা অর্থ সম্পদের লোভে এরচেয়ে নিচু কাজ করতে পিছপাহবেনা

Jasim
১৪ জুন ২০১৯, শুক্রবার, ৭:৪৮

নারী নামের কলঙ্ক।

অন্যান্য খবর