× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার

গতির দাপট

প্রথম পাতা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৫ জুন ২০১৯, শনিবার, ৯:৪৫

বৃষ্টি বাগড়া দেয়নি, সাউদাম্পটন অপেক্ষায় ছিল গতি আর শক্তির লড়াইয়ের। একদিকে উড-আর্চার, অন্যদিকে গেইল-রাসেল। গতি আর শক্তির এ লড়াইয়ে টসে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় ইংল্যান্ড। ইংলিশ বোলিংয়ের বিপক্ষে লেটার মার্ক দূরে থাক ‘ফুল অ্যান্সারও’ করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অলআউট হয়ে যায় ৫০ ওভারের আগেই। ৩টি করে উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ধসিয়ে দিয়েছেন জোফরা আর্চার ও মার্ক উড। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২১২ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পেছনে জো রুটের অবদানও কম নয়! টপ অর্ডারের ব্যর্থতার পর একটু একটু করে ঘুরে দাঁড়ানোর যে চেষ্টা করছিল ক্যারিবীয়রা, সেটি দুই ওভারেই ধূলিসাৎ করে দেন অকেশনাল অফস্পিনার রুট। তবে ২১৩ রানের টার্গেটে বেশ স্বাচ্ছন্দে ব্যাটিং শুরু করে ইংল্যান্ড।
উদ্বোধনী জুটিতেই সংগ্রহ করে ৯৫ রান। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ২০ ওভারে ১ উইকেটে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ১৩৫।

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে শুরু থেকেই চাপের মধ্যে রেখেছে ইংল্যান্ড। ফর্ম হারিয়ে নিজেকে খুঁজা এভিন লুইস ক্রিস ওকসের ফুল লেংথের ডেলিভারিতে বোল্ড হওয়ার আগে করেন ২ রান। গেইল শুরুতে স্লথ, আর্চারকে দুই চার মারার পর ওকসকে চার-ছয় মেরে একটু গা-ঝাড়া দিয়ে উঠেন। ব্যক্তিগত ১ রানের সময় কঠিন একটা ক্যাচ দিয়ে বেঁচে গিয়েছিলেন। নতুন জীবন কাজে লাগাবেন বলে মনে হচ্ছিল। কিন্তু তা আর হয়নি, ৪১ বলে ৩৬ রান করে আউট হয়ে যান লিয়াম প্লাংকেটের এক শর্ট ডেলিভারিতে। শাই হোপ শুরু থেকেই ধুঁকছিলেন, এলবি হওয়ার আগে করেন ৩০ বলে ১১ রান। ৫৫ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। নিকোলাস পুরান আর শিমরন হেটমায়ার পরিস্থিতির দাবি মেটানোর দায়িত্ব নেন। দু’জনই মারকুটে, তবে সিঙ্গেল আর সুযোগ পেলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে স্কোরকার্ড সচল রাখছিলেন। ইংল্যান্ড এই পরিস্থিতিতে আশ্রয় নেয় স্পিনে।

হেটমায়ার হিমশিম খাচ্ছিলেন সেই স্পিনে, শেষ পর্যন্ত ছটফট করতে করতে ৩৯ রানে ফিরতি ক্যাচ দেন জো রুটকে। জেসন হোল্ডারও রুটকে দিলেন ফিরতি ক্যাচ। ১৫৬ রানে ৪ উইকেট নেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের। আন্দ্রে রাসেল শুরুতেই একবার ক্রিস ওকসের কাছে ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যান। এরপর চার-ছয়ে নিজের মতো করেই শুরু করেছিলেন, কিন্তু সেটা আর বেশিদূর এগোয়নি। মার্ক উডের শর্ট বলে শেষ পর্যন্ত প্রায়শ্চিত্ত করার সুযোগ দেন উডকে। ২১ রান করে রাসেল আউট, এরপর দৃশ্যপটে আর্চার। পুরান ওয়ানডেতে নিজের প্রথম ফিফটি পেলেন, কিন্তু ৬৩ রান করে আর্চারের লাফিয়ে উঠা বলে ক্যাচ দিলেন উইকেটের পেছনে থাকা জস বাটলারের হাতে। আম্পায়ার শুরুতে আউট দেননি। কিন্তু বাটলার রিভিউ নিলে দেখা যায় বল পুরানের গ্লাভসে লেগেছে। পরের বলে কটরেলও আউট, রিভিউ নিয়ে সেটি হারাল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শেষ পর্যন্ত সেটার মূল্যই দিতে হয়েছে। ব্রাথওয়েট আউট হয়ে নিতে পারেননি, যদিও বল তার ব্যাটে না, বাহুতেই লেগেছিল। আর্চার আর উডের তোপে তাই শেষই হয়ে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজের সব আশা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর