× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

সংস্কৃতি খাতের বাজেট নিয়ে বিশিষ্টজনদের হতাশা

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ জুন ২০১৯, শনিবার, ১:১৮

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেলে জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বাজেট উত্থাপন করেন। তারপর থেকে শুরু হয়েছে বাজেট নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। কেউ এই বাজেটে সন্তুষ্ট, আবার কেউ অসন্তুষ্ট প্রকাশ করছেন। বিশেষ করে সংস্কৃতি খাতের বাজেট নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিশিষ্টজনেরা। সংস্কৃতি খাতের মূল বাজেটের নুন্যতম এক শতাংশ বরাদ্দের দাবি জানিয়ে আসছিলেন তারা। সেই হিসেবে সংস্কৃতি খাতে যে বাজেট দেওয়া হয়েছে তা মোটেও সন্তোষজনক নয় বলে মনে করেন বিশিষ্টজনেরা। এবারের বাজেটের আকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা, যা জিডিপির ১৮ দশমিক ১ শতাংশ। এর মধ্যে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জন্য বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে ৫৭৫ কোটি টাকা।
গত বছর প্রস্তাবিত বাজেট ছিল ৫১০ কোটি এবং সংশোধিত বাজেট ছিল ৬২৫ কোটি টাকা। সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, দেশব্যাপী শুদ্ধ সংস্কৃতিচর্চার প্রসার ঘটাতে হলে এ খাতে বরাদ্দ বাড়াতে হবে। সরকারের কাছে আমাদের দাবি, মূল বাজেটের এক শতাংশ করা হোক সংস্কৃতিখাতে বরাদ্ধ। নাট্যজন মামুনুর রশীদ বলেন, মূল বাজেটের অন্তত ১ শতাংশ সংস্কৃতি খাতে বরাদ্দ দেওয়ার দাবি জানাই।

সরকার নিশ্চয় চায় না, আমাদের সংস্কৃতি ধ্বংস হোক? সংস্কৃতি বান্ধব সরকারের কাছে আমরা এই বাজেট আশা করি না। আশা করি তিনি আমাদের দাবিটি মেনে নিবেন। চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব ও সাংসদ ফারুক বলেন, চলচ্চিত্র খাতের বরাদ্দ আরেকটু বাড়ানো যেতো। এবার যেটা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে সেটা সামগ্রিক বরাদ্দের তুলনায় সামান্যই বলবো। চলচ্চিত্র শিল্পকে এগিয়ে নেয়ার এই খাতে রাষ্ট্রের আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতাও জরুরি। তবে সামগ্রিক বাজেট সন্তোষজনক, এই বাজেট দেশের উন্নয়নকে এগিয়ে নেবে বলেই আমার বিশ্বাস। সম্মিলিত সাংষ্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ বলেন, এই বাজেট দেখে আমরা হতাশ। সংস্কৃতিখাতে মূল বাজেটের ১ শতাংশ করার দাবি ছিল আমাদের। এই সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার, তাই আমাদের প্রত্যাশাও তাদের কাছে বেশি। এখনও যেহেতু বাজেট পাস হয়নি, সময় যেহেতু সামনে আছে, সুযোগ আছে। তাই আমরা চাইবো আমাদের সাংস্কৃতিক কর্মীদের প্রত্যাশা সংস্কৃতি খাতেবাজেট বাড়ানো হোক।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর