× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ জুলাই ২০১৯, শুক্রবার

বাজেট প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে না- খসরু

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ জুন ২০১৯, শনিবার, ১:৪৩

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ক্ষমতাসীন সরকারের সমালোচনা করে বলেছেন, বাজেট দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে না। তারা জনগণের কাছে দায়বদ্ধ নয়। তারা একদিকে লুট করছে, অন্যদিকে বাজেট দিচ্ছে, দেশ পরিচালনা করছে, পলিসি নির্ধারণ করছে। আজকে সব একীভূত। সত্যিকার অর্থে যারা ভোট চুরি করে তাদের হাতে দেশের সম্পদ নিরাপদ নয়। তাদের দ্বারা সম্পদের সুষম বণ্টন হতে পারেনা।

আজ শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী তাতীদল আয়োজিত ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন। তিনি বলেন, সাংগঠনিক সবকিছু প্রোটোকল মেনে কাজ করার পরিবেশ দেশে নেই। সব অঙ্গ সংগঠনকে যথাযথ মূল্যায়ন করতে হবে।
এটার প্রয়োজনীয়তা আছে। তা না হলে অন্যরা কাজ করবেনা। বাজেটে দেশের তাঁতী সম্প্রদায়ের জন্য কি দেয়া হয়েছে সে নিয়েও তাঁতী দলকে কাজ করতে হবে। তবেই আপনারা বিএনপির হয়ে তাঁত শিল্পে কর্মরত লোকজনের কাছে সমাদৃত হবেন। সব অঙ্গ সংগঠনের প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে নিজ নিজ খাতের বিভিন্ন বিষয়ে সোচ্চার হওয়া। কেননা তাঁতীদের চাহিদা কখনোই পূরণ করা সম্ভব হয়নি। সারাবিশ্বে হাতে বোনা তাঁত পণ্যের চাহিদা অনেক বেশি। কিন্তু আমরা বাংলাদেশে তার মূল্যায়ন করতে পারিনা। এই শিল্পের বিকাশ ঘটাতে ও বাজার ধরে রাখতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। তাঁত শিল্প বাঁচানোর বিকল্প নেই।

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, আজকে দেশের মানুষ সবচেয়ে বেশি স্পর্শকাতর দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি। তার মুক্তির সাথে সবকিছু জড়িত। তার মুক্তির সাথে জড়িত মানুষ ভোটাধিকার ও নিরাপত্তা ফিরে পাবে কিনা। ন্যায় বিচার পাবে কিনা। আমাদের এক দাবি নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। সেটা হলো খালেদা জিয়ার মুক্তি।

আমীর খসরু বলেন, দেশের একটি গোষ্ঠী জনগণকে বাইরে রেখে ক্ষমতা দখল করে একদলীয় স্বৈরশাসন প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

আজকে তিউনিশিয়ার উপকূলীয় এলাকায় বাংলাদেশের তরুণ যুবকেরা ভাসছে। কেনো জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পালিয়েছে? কেউ কি জবাব দিতে পারবেন? যে দেশে গণতন্ত্র থাকবেনা, বাক স্বাধীনতা থাকবেনা, সেখানে ন্যায় বিচার হতে পারেনা। আমাদেরকে আন্দোলনে নেমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, ওলামা দলের আহ্বায়ক শাহ মোহাম্মদ নেছারুল হক, বিএনপির তাঁতী বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক সভাপতি হুমায়ুন ইসলাম খান,যুগ্ম-আহ্বায়ক বাহাউদ্দিন বাহার, ড.কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
১৫ জুন ২০১৯, শনিবার, ৬:৪৯

You are not talking about budget, you are talking about your leader's release. That's why public don't support BNP's movement.

অন্যান্য খবর