× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ জুলাই ২০১৯, শুক্রবার

কুলাউড়ায় সড়ক ও ব্রিজের সৌন্দর্য্য বর্ধনে তরুণদের স্বেচ্ছাশ্রম

বাংলারজমিন

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | ১৬ জুন ২০১৯, রবিবার, ৮:২৭

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার হাকালুকি হাওর এলাকা ভূকশিমইল ইউনিয়নের প্রধান সড়ক ও ব্রিজের সৌন্দর্য্য বর্ধনে এগিয়ে এসেছেন স্থানীয় তরুণেরা। ফেসবুকভিত্তিক সামাজিক সংগঠন কুলাউড়া সমস্যা ও সম্ভাবনা গ্রুপের উদ্যোগে গত শুক্রবার দিনব্যাপী পর্যটনের সম্ভাবনাময় স্থান উপজেলার কাদিপুর-বরমচাল রোডে ছকাপনের গোগালি নদীর উপর নির্মিত ভূকশিমইল ইউনিয়নের প্রবেশদ্বার পালের মোড়া সেতুর উভয়দিকের প্রায় ৫০০ ফুট রাস্তা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করেন  তারা। স্থানীয়দের সহযোগিতা নিয়ে সড়ক ও ব্রিজের আশেপাশের পরিবেশের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য এখানে গোলাপ, জবা, গন্ধরাজ হাসনাহেনা, বেলিসহ বিভিন্ন প্রজাতির একশত ফুলের চারা সড়ক ও ব্রিজের উভয় পাশে রোপণ করেন। কর্মসূচিতে অংশ নেন কুলাউড়া সমস্যা ও সম্ভাবনা সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ আব্দুল হামিদ মাহফুজ, ভূকশিমইল ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য মাহবুব হাসান জসিম, এলাকাবাসীর পক্ষে সেলিম আহমদ, অভিনাশ দাস, পাপলু আহমদ, জয়দ্বীপ দাস, শরীফ আহমদ, ফনি দাস, মুইয়ুব আহমদ, দীপ্ত দাস, মহরম উদ্দীন মঞ্জু প্রমুখ। কুলাউড়া সমস্যা ও সম্ভাবনা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ আব্দুল হামিদ মাহফুজ জানান, এই ব্রিজকে সিলেটের কাজীরবাজার সেতুর মতো করতে আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। ব্রিজের উভয়দিকের সড়ক বন্যার কবল থেকে রক্ষার জন্য আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বৃক্ষরোপণ করার পরিকল্পনা আছে। ব্রিজটি আগে রং করা ছিল না, কিন্তু পর্যটকদের কথা চিন্তা করে ও আমাদের বিশেষ অনুরোধে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের কুলাউড়া এলজিইডি অফিস সমপ্রতি সেতুটির সৌন্দর্য বর্ধন করেছে। সুবিশাল হাকালুকি হাওরের উত্তাল পানির ঢেউ সদ্য সংস্কার হওয়া নতুন চকচকে রাস্তার দু’ধারে আচড়ে পড়ার দৃশ্য ও নদীতে জেলেদের মাছ ধরার বিভিন্ন কৌশল, দৃষ্টিনন্দন এই ব্রিজের উপর থেকে দেখে অনেকেই বিমোহিত হন।



নয়নাভিরাম এই স্থান থেকে নৌকায় হাওরের সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য, এখন প্রতিদিন বিকাল বেলা অনেক পর্যটক এই ট্যুরিস্ট স্পটে নিয়মিত ঘুরতে আসেন। তারা স্থানীয় মানুষের প্রতি অনুরোধ করেন, আপনারা ব্রিজের উপরের রাস্তায় মাছ ধরার জাল, গরুর গোবর ও ধানের খড় শুকাতে দেবেন না। উপজেলা প্রশাসনের প্রতি তাদের দাবি কুলাউড়ার পর্যটন সেক্টরের কথা বিবেচনায় রেখে যদি এই ব্রিজে কয়েকটি সৌর সোডিয়াম বাতি লাগানো যায় তাহলে ওই এলাকার সৌন্দর্য অনেকটা বাড়বে।  কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ আবুল লাইছ বলেন, এই সংগঠনের কাজ খুবই প্রশংসনীয়। ওই এলাকার সৌন্দর্যকরণে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খুব শিগগির কয়েকটি সৌর সোডিয়াম বাতির ব্যবস্থা করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর