× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার

ভূঞাপুরে পরিত্যক্ত ভবনে চলছে পাঠদান

অনলাইন

ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি | ১৭ জুন ২০১৯, সোমবার, ২:১৬

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার ১৬ নং ঢেপাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জায়গার সংকুলান না হওয়ায় পরিত্যক্ত ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে শিক্ষার্থীদের ক্লাস কার্যক্রম। ফলে আবহাওয়া খারাপ হলে বৃষ্টির পানিতে ভিজেই ক্লাস করতে হয় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের। এতে বিদ্যালয় বিমুখ হয়ে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।

সরজমিনে দেখা গেছে, উপজেলা ঢেপাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তিনটি ভবন রয়েছে। যার একটি শিক্ষকরা অফিস হিসেবে ব্যবহার করছেন। অন্য একটি ভবনের দুটি কক্ষে ক্লাস চলছে এবং বাকি ভবনটি পরিত্যক্ত। যে ভবনটিতে ক্লাস চলছে সেখানে জায়গার সংকুলান না হওয়ায় ঝুঁকি নিয়ে পরিত্যক্ত ভবনেই ক্লাস নিচ্ছেন শিক্ষকরা। তবে ভবনটি যেকোনো মুহূর্তে ভেঙে পড়ার আশঙ্কা আছে। পরিত্যক্ত ভবনের দু’টি কক্ষের দরজা, জানালা, টিনের চাল মরিচা ধরে খসেখসে পড়ছে।


বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে বিদ্যালয়ে ২৫৯ জন শিক্ষার্থী পড়াশুনা করছে। ভবনটি ১৯৯০ সালে নির্মাণের পর আর সংস্কার করা হয়নি। এরপর ২০১৫ সালে ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়।
ঢেপাকান্দি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফরিদুল ইসলাম বলেন, বিকল্প না থাকায় ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও বাধ্য হয়ে জরাজীর্ণ এই কক্ষে ক্লাস নিতে হচ্ছে। ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভয়-আতঙ্ক বিরাজ করছে। এতে শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসতে চায় না।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুল খালেক বলেন, যেকোনো মুহূর্তে ভবনটি ভেঙে পড়তে পারে। বারবার শিক্ষা অফিসকে অবহিত করেও কোনো ফল পাওয়া যায়নি।

উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহজামাল বলেন, বিদ্যালয়ে উন্নয়ন কাজের জন্য টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে। দ্রুত তাড়াতাড়ি ঢেপাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন, বিদ্যালয়ের গেট ও সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর