× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

ঝালকাঠি-বরিশাল রুটে বাস চলাচল বন্ধ, ভোগান্তি

বাংলারজমিন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি | ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:৩০

অতিরিক্ত চাঁদা না দেয়ায় বাসচালককে মারধরের প্রতিবাদে ঝালকাঠি-বরিশাল রুটে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে বরিশালের রূপাতলীর নির্ধারিত বাসস্ট্যান্ডের ৪ কিলোমিটার দূরে গিয়ে ঝালকাঠির কালিজিরা এলাকা থেকে ঝালকাঠি, খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পিরোজপুরসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাত রুটে বাস চলাচল শুরু করেছে। এতে বিশেষ করে শিশু ও বয়স্ক লোক চরম অসুবিধায় পড়ছেন। গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত খচর, নষ্ট হচ্ছে সময়। ঝালকাঠি বাস ও মিনি বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বাহাদুর চৌধুরী জানান, ঝালকাঠি সমিতির রংধনু নামে একটি বাসের চালক মিলন হাওলাদারের কাছে শনিবার সকালে বরিশালের রূপাতলী বাসস্ট্যান্ডে মালিক সমিতির লোকজন স্ট্যান্ড ফি বাবদ এক হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। প্রকৃতপক্ষে চাঁদার পরিমাণ ৯০ টাকা হলেও অতিক্তি টাকা দাবি করে তারা। এ টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় বরিশাল-পটুয়াখালী বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতির লোকজন ঝালকাঠির বাস চালক মিলন হাওলাদারকে মারধর করে। এর প্রতিবাদে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি অভ্যন্তরীণ রুটসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১৮ রুটে বাস চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেন।
একদিন বন্ধ থাকার পরে রূপাতলী স্ট্যান্ডের পরিবর্তে ঝালকাঠির কালিজিরা এলাকা থেকে বাস চলাচল শুরু করে জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি। ফলে বরিশাল-পটুয়াখালী বাস মালিক সমিতির কোনো গাড়ি ঝালকাঠির সড়ক ব্যবহার করে চলাচল করতে পারছে না। মাঝপথে বাস থামানোর কারণে বিকল্প যানবাহনে বরিশাল যেতে হয় যাত্রীদের। এতে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত অর্থ, নষ্ট হচ্ছে সময়। এদিকে মালিক সমিতির দ্বন্দ্বের জেরে সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে নলছিটি-রূপাতলী যাত্রীবাহী বাস চলাচল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর