× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ জুলাই ২০১৯, বুধবার

সরফরাজকে ‘মস্তিষ্কহীন’ বললেন শোয়েব আখতার

ক্রিকেট বিশ্বকাপ-২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:৫৩

এবার পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজের মুণ্ডপাত করলেন সাবেক গতিতারকা শোয়েব আখতার। রোববার ভারতের বিপক্ষে ৮৯ রানে হার দেখে পাকিস্তান। হারের পর পাকিস্তান অধিনায়কের ওপর চটেছেন ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’ খ্যাত সাবেক তারকা পেসার শোয়েব আখতার। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে শোয়েব আখতার বলেন, ‘আমি বুঝি না  একজন অধিনায়ক এমন মস্তিষ্কহীন কী করে হয়। সরফরাজ কীভাবে রান তাড়া করে জেতার চিন্তা করলো। উইকেট শুকনা ছিল, ভেজা না। তার এটা বোঝা উচিত তোমার শক্তি ব্যাটিংয়ে না বোলিংয়ে।’
এর আগে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হারের পর সরফরাজের ভুঁড়ি নিয়ে সমালোচনা করেন শোয়েব আখতার। বিশ্বকাপ শুরুর আগে পাকিস্তানের আরেক সাবেক পেসার ওয়াসিম আকরাম, সরফরাজের খাদ্যাভাস নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন।
পাকিস্তান ক্রিকেটারদের জন্য বিরিয়ানি নিষিদ্ধ করার দাবি জানান ‘সুইং অব সুলতান’ খ্যাত ওয়াসিম আকরাম।
সরফরাজের ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে শোয়েব আখতার টুইট করে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির কথা মনে করিয়ে দিয়েছিলেন। তিনি টুইটারে লেখেন, ‘দুই বছর আগে (চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি) ফাইনালে টস জিতে যে ভুলটা করেছিল ভারত অধিনায়ক কোহলি, সেই একই ভুলটা এদিন করে বসলো সরফরাজ।’ ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ৩৩৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৫৮ রানে গুটিয়ে যায় ভারতের ইনিংস। সে ম্যাচে ১৮০ রানের বিশাল জয় পায় পাকিস্তান।
শোয়েব আখতার মনে করেন ম্যাচে টস অর্ধেক প্রভাব ফেলে। টসে জিতে যদি সরফরাজ ব্যাটিং নিতো তাহলে জয়ের জন্য এগিয়ে থাকতো তারা। শোয়েব বলেন, ‘এখন টসে জেতা মানেই আপনি অনেকটা জিতে গেছেন। কিন্তু আপনি কি করছেন? সে (সরফরাজ) চেষ্টা করছে যেন আমরা ম্যাচে না জিতি। আরো একবার বোকার মতো অধিনায়কত্ব করলো সরফরাজ। আর অপদার্থ টিম ম্যানেজমেন্ট।’
১৯৯৯ বিশ্বকাপের কথা মনে করিয়ে দিয়ে শোয়েব আখতার বলেন, ‘ইমজামাম, ইউসুফ, সাঈদ আনোয়ার, শহীদ আফ্রিদির মতো তারকা ব্যাটসম্যান থাকতেও এই মাঠে (ম্যানচেস্টার) ২২৭ রানের লক্ষ্য পার করতে পারিনি। সুতরাং আমরা যখন টস জিতেছি, আমাদের সুযোগটা নেয়া উচিত ছিল। রোববার ভারতের বিপক্ষে সবচেয়ে খরুচে বোলিং করেন হাসান আলী। ৯ ওভার বল করে ৮৪ রান দেন এই পাকিস্তানি পেসার। হাসান আলীর এমন বোলিং নিয়ে শোয়েব আখতার বলেন, ‘পরিকল্পনাহীন বোলিং সেই সঙ্গে অনিয়ন্ত্রিত লাইন-লেন্থে দলকে ডুবিয়েছে বোলাররা।
হাসান আলীকে দেখেন, বাগাহ বর্ডারের সেনাদের মতো লাফালাফি করে। কিন্তু ম্যাচে কিছুই করতে পারে না।  হাসান আলির বলে গতিও যথেষ্ট নেই সেইসঙ্গে লেন্থের অভাব। সবকিছু ঠিক থাকতো সে যদি ৬-৭ উইকেট নিতে পারতো। কিন্তু সে আসে ৮২-৮৪ রান দেয়।’ পাকিস্তানের বোলিং ব্যর্থতার দিনে দুর্দান্ত ছিলেন মোহাম্মদ আমির। বল হাতে ১০ ওভারে ৪৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট তুলে নেন আমির। তাতেও শোয়েব আখতারের সমালোচনা থেকে পার পাননি আমির। তিনি বলেন, তিন উইকেট নিলেও আমির কখনোই ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ভয়ের কারণ হয়ে উঠতে পারেনি। ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা খুব সহজেই আমিরের মোকাবিলা করেছেন। গ্রুপ পর্বে আর চারটি ম্যাচ বাকি রয়েছে পাকিস্তানের। এখান থেকে একটি ম্যাচ হারলেই বিদায় নিশ্চিত পাকিস্তানের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর