× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

ঝালকাঠিতে আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

অনলাইন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি | ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ১২:৪২

ঝালকাঠির রাজাপুরে জাল দলিল তৈরি করে এক ব্যবসায়ীর জমি দখলের অভিযোগ উঠছে। ব্যবসায়ী ইকবাল হোসেনের পৈত্রিক সম্পত্তি স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের নিয়ে দখল করে নেয় ভূমিদস্যুরা। প্রভাবশালী দখলদাররা আদালতের আদেশও উপেক্ষা করেছেন। মানছেন না রাজাপুর থানা পুলিশের নির্দেশনাও। এ অবস্থায় পৈত্রিক সম্পত্তি ফিরে পেতে ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সহযোগিতা চেয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারটি। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ঝালকাঠি শহরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে ইকবাল হোসেন এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯৫৫ সালে তাঁর বাবা আপ্তার উদ্দিন রাজাপুরের ৪৭ নম্বর মৌজার ৩০ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। দীর্ঘ ৬৪ বছর ধরে এ জমি ভোগ দখল করে আছেন তারা। ২০১২ সালে স্থানীয় মোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে মো. জহুরুল ইসলাম একটি জাল দলিল তৈরি করে জমির মালিকানা দাবি করেন।
এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিকবার সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হলেও কোন সমাধান হয়নি। গত ৭ জুন গভীর রাতে জহুরুল ইসলাম আওয়ামী লীগ নেতা মো. শাহিন মৃধা ও তাঁর ভাই আরিফ মৃধাসহ ভূমিদস্যু বাহিনী বিরোধীয় জমিতে জোড়পূর্বক ঘর নির্মাণ করে জমিটি দখল করে নেন। বিষয়টি নিয়ে ঝালকাঠির অতিরিক্ত ম্যাজিস্টেট আদালতে মামলা করেন ক্ষতিগ্রস্তরা। আদালত রাজাপুর থানার ওসিকে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেন। রাজাপুর থানায় দুই পক্ষের কাগজপত্র নিয়ে গত ১৫ জুন বসার কথা থাকলেও ভূমিদস্যু জহুরুল ইসলাম প্রভাবশালীদের নিয়ে এসে পুলিশকে কোন কাগজপত্র দেখাতে রাজি হয়নি। তারা পুলিশের নির্দেশ না মেনে বৈঠক ছেড়ে বেরিয়ে যায়। এ অবস্থায় নিজের পৈত্রিক সম্পত্তি ভূমিদস্যুদের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর