× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার

দোহারে তুচ্ছ ঘটনায় কুপিয়ে জখম

বাংলারজমিন

দোহার (ঢাকা) প্রতিনিধি | ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৯:০০

দোহার উপজেলার নিকড়া এলাকায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো. শাহিন শেখ নামে একজনকে কুপিয়ে জখম করেছে স্থানীয় প্রভাবশালী রাসেল বেপারী। এ ঘটনায় ওই ব্যক্তির মা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার বিকাল আনুমানিক সাড়ে ৪টার দিকে দোহার-নবাবগঞ্জ ঢাকা গুলিস্তান রোডের চলাচলকারী ডিএন পরিবহনের ড্রাইভার তাদের গাড়ি নিয়ে ঢাকা গুলিস্তান থেকে জয়পাড়ার রতন চত্বরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। জয়পাড়া কলেজ মোড় পর্যন্ত আসলে গাড়িটি জ্যামের মধ্যে পড়ে। এ সময় স্থানীয় নিকড়া বেপারী বাড়ির ছেলে রাসেল বেপারী ওই পথে যাওয়ার সময় গাড়িটি তার মোটরসাইকেলের সামনে পড়ে। এতে ডিএন পরিবহনের বাসের হেলপারসহ বাসচালককে বাসের কারণে রাস্তায় জ্যাম হচ্ছে বলে রাসেল বেপারী বকাঝকা করে। এ নিয়ে বাসের হেলপার মো. জুলহাসের সঙ্গে রাসেল বেপারীর কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রাসেল বেপারীর সঙ্গে  জুলহাসের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এ নিয়ে ডিএন পরিবহনের ড্রাইভার মো. শাহীনকে রাসেল বেপারীর পক্ষে মো. অনু নামে একজন বিষয়টি নিয়ে বসে মিটিয়ে দিবেন বলে জানান।
বিষয়টি নিয়ে ওই দিনই বিকাল সাড়ে ৫টার সময় অনু তাদের নিকড়া এলাকার রাসেল বেপারীর বাড়িতে আসতে বলেন। অনুর কথায় সাড়া দিয়ে ডিএন পরিবহনের ড্রাইভার মো. শাহিন, বাসের ম্যানেজার মো. মজনু, বাসের সুপার মো. বাবুল বেপারী ও মো. শাহিনের মা কমলা বেগম নিকড়া এলাকায় যান । দুই পক্ষের  কথাবার্তার একপর্যায়ে মো. রাসেল ডিএন পরিবহনের ড্রাইভার মো, শাহিন  শেখকে মো. রাসেল চাপাতি বের করে মারাত্মকভাবে কুপিয়ে জখম করে। এ সময় রাসেলের সঙ্গে আরেক যুবক উপস্থিত ছিল। গুরুতর আহত অবস্থায় মো. শাহিনকে দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
এ বিষয়ে আহত শাহিনের মা কমলা বেগম বাদী হয়ে দোহার থানায় রাসেলসহ দুইজনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করে।
এ বিষয়ে দোহার থানার সেকেন্ড অফিসার সৌমেন মিত্র বলেন, এ বিষয়ে দোহার থানায় আপাতত একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তবে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর