× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার

ময়মনসিংহে নিখোঁজ যমজ ৩ বোন উদ্ধার

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ থেকে | ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৯:৩৭

 ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) অভিযান চালিয়ে আলোচিত ফুলপুর থেকে নিখোঁজ ৩ যমজ বোন উদ্ধার ও জড়িত ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। গতকাল দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এক সাংবাদিক সম্মেলনে পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন এ তথ্য জানান। গত ১৫ই জুন জেলা ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি দক্ষিণপাড়া গ্রামের আ. রহমানের যমজ ৩ কন্যা আবিদা সুলতানা (১৫), সাহানা সুলতানা সুমা (১৫) ও রেজিয়া সুলতানা চম্পা (১৫) নিখোঁজ হয়ে যায়। এ ব্যাপারে ভিকটিমের চাচা আ. ছালাম ফুলপুর থানায় জিডি করেন। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন ডিবি পুলিশের অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দকে তদন্তের নির্দেশ দেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে গত ১৭ই জুন শেরপুর জেলা নকলা থেকে আবিদা সুলতানা পপিকে উদ্ধার করা হয়। অপহরণ হয়েছে বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে ১৮-০২-১৯ তারিখ ৯ জনকে আসামি করে ভিকটিমের বাবা আ. রহমান বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। ওই দিনেই জড়িত সুলতান মাহমুদ ও মাসুদ রানাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
এর সূত্র ধরে একই দিনে আসামি মোমেন ও সুরাইয়া রাহাকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ১৯শে জুন ভোর রাতে আসামি মুন্না এবং জুয়েলকে শেরপুর জেলার নকশী বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে এবং তাদের হেফাজতে থাকা নিখোঁজ অপর দুই ভিকটিম চম্পা ও সুমাকে উদ্ধার করা হয়। ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত ৬ জন আসামিকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।
আসামিরা সকলেই শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতি উপজেলার। উল্লেখ্য, যমজ তিন বোন ভাইটকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। সাংবাদিক সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়িতা শিল্পী (প্রশাসন), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল আমিন (সদর সার্কেল) ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর