× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

৬৪ বাংলাদেশী সহ অভিবাসীদের বোট নোঙরের অনুমতি দিয়েছে তিউনিশিয়া

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১০:৩১
প্রতীকী ছবি

ভূমধ্যসাগরে কঠিন অবস্থায় তিন সপ্তাহ পাড় করার পর অবশেষে ৭৫ অভিবাসীকে নোঙর করার অনুমতি দিয়েছে তিউনিশিয়া। এরপর সেখান থেকে তাদেরকে যার যার দেশে ফেরত পাঠানো হবে। এর মধ্যে ৬৪ জনই বাংলাদেশী। বুধবার এ কথা বলেছে রেড ক্রস। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানাচ্ছে, গত মাসে ওইসব অভিবাসীকে তিউনিশিয়ার জলসীমা থেকে উদ্ধার করে মিশরের একটি বোট। কিন্তু তিউনিশিয়ার মেডিনিন এলাকার শাসকরা তাদেরকে স্থলে অবতরণ করতে অনুমতি দিচ্ছিল না। তাদের যুক্তি ছিল, সেখানে অভিবাসীদের আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে অতিরিক্ত মানুষ অবস্থান করছে। সেখানে আর কোনো অভিবাসীকে ঠাঁই দেয়ার কোনো উপায় নেই।
ফলে উপকূলীয় শহর জারজিস থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে সমুদ্রের ভিতর অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন ওইসব অভিবাসী।

রেড ক্রিসেন্ট কর্মকর্তা মঙ্গি স্লিম বলেছেন, অভিবাসীরা কঠিন অবস্থায় সমুদ্রে তিন সপ্তাহ আটকা থাকার পর তিউনিশিয়া তাদেরকে উদ্ধারকারী বোটকে নোঙর করার অনুমতি দিয়েছে, যাতে সামনের দিনগুলোতে তাদেরকে যার যার দেশে ফেরত পাঠানো যায়। এসব অভিবাসীর মধ্যে বাংলাদেশী ছাড়াও রয়েছেন ৯ জন মিশরীয়, একজন মরক্কোর নাগরিক ও একজন সুদানি। সুদানের নাগরিক আশ্রয় প্রার্থনা করেছেন। এ জন্য তিনি বাদে সবাইকে ফেরত পাঠানো হবে।

তিউনিশিয়া সরকারের এমন সিদ্ধান্তের জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন অভিবাসীদের অধিকার বিষয়ক গ্রুপ ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশনের (আইওএম) প্রধান লরেনা ল্যান্ডো। তিনি বলেছেন, তিউনিশিয়া জীবন ও সম্মানের প্রতি যে দায়িত্বশীলতা দেখিয়েছে সে জন্য নতুন করে তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই আমরা। তিনি আরো বলেন, ভূমধ্যসাগরে অভিবাসীদের সহায়তার জন্য সমন্বিতভাবে জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ নেয়া উচিত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর