× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

ভুল উক্তি দিয়ে সমালোচিত ইমরান খান

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১:৩৬

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের একটি টুইট নিয়ে তোলপাড় চলছে। ব্যাপক সমালোচিত হচ্ছেন তিনি। ওই টুইটে তিনি একটি উদ্ধৃতি দিয়েছেন। কিন্তু এর কৃতীত্ব দিয়েছেন লেবাননের লেখক ও কবি কাহলিল জিব্রানকে। প্রকৃতপক্ষে ওই উদ্ধৃতি হলো বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের। বুধবার ইমরান খান তার অফিসিয়াল টুইটার একাউন্টে ওই টুইট করেন। অনুপ্রেরণামুলক ওই টুইটে তিনি লিখেছেন- ‘আমি ঘুমালাম। স্বপ্ন দেখলাম যে, জীবনটা আনন্দময়।
ঘুম থেকে জেগে উঠলাম। দেখলাম জীবনটা হলো সেবা করার জন্য। আমি সেবা করলাম। দেখলাম সেবার মধ্যেই আনন্দ’। এর সঙ্গে তিনি লিখেছেন, যারা উল্লেখিত জিব্রানের এই কথাগুলো অনুধাবন করবেন এবং অর্থ উদ্ধার করবেন তারা সন্তুষ্টি নিয়ে বাস করতে পারবেন।

কিন্তু তিনি কাহলিল জিব্রানের বলে যে উক্তিটি তুলে দিয়েছেন তা আসলে লিখেছেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। ফলে ইমরান খানের এই ভুলের জন্য টুইটারে যেন ঝড় বইছে। পাকিস্তানি সাংবাদিক আজহার আব্বাস জবাবে টুইট করেছেন। বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী, আমার মনে হয় এ উক্তিটি (রবীন্দ্রনাথ) ঠাকুরের। আরেকজন টুইট করে বলেছেন, তিনি কি আসলেই একজন প্রধানমন্ত্রী নাকি অন্য কিছু? দর্শন সংক্রান্ত উক্তি দেয়ার আগে তিনি চেক করেন না কার লেখা উদ্ধৃত করছেন।

টুইটার ব্যবহারকারী মনোজ আগরওয়াল বলেছেন, চমৎকার উক্তি। কিন্তু এগুলো রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কথা। আরেকজন লিখেছেন, খান সাহেব, এটা (রবীন্দ্রনাথ) ঠাকুরের উক্তি। আপনার জরুরি ভিত্তিতে একটি শিক্ষিত ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সম্পর্কিত জ্ঞানসম্পন্ন মিডিয়া টিম থাকা উচিত।

এর আগেও এ মাসের শুরুতে ইমরান খান এমন ‘ট্রোলড’ হয়েছেন। অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক সামিটে সৌদি আরবের বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় তিনি প্রটোকল ভেঙেছিলেন। টুইটারে শেয়ার করা এক ভিডিওতে দেখা যায়, তিনি সৌদি বাদশার দোভাষীর সঙ্গে কথা বলছিলেন। কিন্তু ম্যাসেজ বা বার্তা ভাষান্তর করে জানানোর আগেই তিনি সৌদি আরবের বাদশাকে একা রেখে সেখান থেকে চলে যান। এ জন্য ভয়ানক সমালোচনার মুখে পড়েন ইমরান খান। সমালোচনা ওঠে পাকিস্তানের ভিতরে ও সৌদি আরবে।

এ ছাড়া গত সপ্তাহে তাজিকিস্তানের বিশকেকে অনুষ্ঠিত সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন সামিটেও তিনি অশোভন আচরণ করেন। ওই সম্মেলনে যোগ দিতে রাষ্ট্রীয় প্রধানরা যখন অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশ করেন, তখন সবাই দাঁড়িয়ে যান। কিন্তু দাঁড়ান নি ইমরান খান। এ জন্য তাকে সমালোচনা শুনতে হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর