× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

ইস্তাম্বুলে পুনঃনির্বাচন আজ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৩ জুন ২০১৯, রবিবার, ৮:৩২

রোববার আবারো মেয়র নির্বাচন করতে ভোট দেবে ইস্তাম্বুলের মানুষ। ৪ মাস আগের ভোটে প্রতিনিধি নির্বাচনে ব্যর্থ হওয়ার পর পুনরায় ভোটের জন্য প্রস্তুত ইস্তাম্বুল। ধারণা করা হচ্ছে, এতে ভোট দেবেন প্রায় ১ কোটি ৬০ লাখ মানুষ। এ খবর দিয়েছে আল-জাজিরা।
গত ৩১শে মার্চের নির্বাচনে প্রধান শহরগুলোতে ভরাডুবি হয়েছে ক্ষমতাসীন একে পার্টির। ইস্তাম্বুলেও অল্প ব্যবধানে হেরে যায় একে পার্টির প্রার্থী বিনালি ইলদিরিম। অপরদিকে জয় পায় সেক্যুলারিস্ট দল সিএইচপি প্রার্থী একরেম ইমামগ্লু। এটি এরদোগানের দল একে পার্টির জন্য ছিল লজ্জাজনক। দলটি রাজধানী আঙ্কারাসহ প্রধান ৩ শহরের সবক’টিতেই পরাজিত হয়।
ইস্তাম্বুলে ইমামগ্লু প্রায় ১৪ হাজার ভোট বেশি পেয়েছিল। তিনি ১৮ দিন দায়িত্বও পালন করেছিলেন। কিন্তু এরপর একে পার্টির অভিযোগের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন এসে পুনরায় নির্বাচনের ঘোষণা দেয়।
সিএইচপি সমর্থকদের ধারণা, একে পার্টি নির্বাচন নিয়ে প্রতারণা না করলে তারাই পুনরায় ক্ষমতায় আসবে। জায়নেপ নামের এক সমর্থক আল-জাজিরাকে বলেন, মানুষ একে পার্টির মিথ্যা শুনতে শুনতে ক্লান্ত। তারা ইমামগ্লুর কাছ থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে নিয়েছে এবং গণমাধ্যমকে চেপে ধরেছে। তিনি নির্যাতনের ভয়ে নিজের নামের শেষের অংশটি জানাননি। একে পার্টির বিভিন্ন সিদ্ধান্তকে রাষ্ট্রের জন্য হুমকিস্বরূপ দাবি করেছেন অনেক সিএইচপি সমর্থক।
তুর্কিস রিসার্চ প্রোগ্রামের পরিচালক সোনার কাজাপ্তায় বলেন, তুরস্কের ইতিহাসে রোববারের নির্বাচন একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। ১৯৫০ সালে এখানে গণতন্ত্র আসার পর থেকে এই প্রথমবার কোনো হেরে যাওয়া দল নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করলো। এরদোগানের চাপের সামনে নির্বাচন কমিশন মাথানত করতে বাধ্য হলো।  


অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর