× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার

ইরানের অস্ত্রব্যবস্থার ওপর সাইবার হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৩ জুন ২০১৯, রবিবার, ১১:১৬

ইরানের অস্ত্র ব্যবস্থার ওপর সাইবার হামলা চালিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। গত বৃহ¯পতিবার এই ঘটনা ঘটে। একইদিন দেশটির ওপর সামরিক হামলা চালানোর নির্দেশও দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। হামলার সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছিল। তবে শেষ মুহূর্তে নির্দেশ প্রত্যাহার করে নেন ট্রাম্প। এ খবর দিয়েছে বিবিসি ও দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট।

মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, হরমুজ প্রণালিতে মার্কিন ড্রোন ভ’পাতিত করা ও সৌদি তেলের ট্যাংকারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার জবাবে এই হামলা চালানো হয়। উল্লেখ্য, গত মাস ও চলতি মাস মিলিয়ে হরমুজ প্রণালিতে চারটি সৌদি তেলের ট্যাংকারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে। কোনো দল বা দেশ এই হামলার দায় স্বীকার করেনি।
তবে যুক্তরাষ্ট্রের দাবি হামলাগুলোর পেছনে ইরান জড়িত রয়েছে। কিন্তু ইরান ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। এদিকে, স্থানীয় সময় গত বৃহ¯পতিবার ইরানের হরমুজ প্রণালিতে একটি মার্কিন নজরদারি ড্রোন ভ’পাতিত করেছে ইরান। ওই হামলার জবাবে দেশটির ওপর সামরিক হামলার নির্দেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প। কিন্তু পরবর্তীতে তা বাতিল করে দেন। একইদিন ইরানের অস্ত্রব্যবস্থার ওপর সাইবার হামলা চালানো হয়েছিল। পাশাপাশি দেশটির বিরুদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করা হয়েছে। ট্রাম্প জানিয়েছেন, ইরান যাতে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করতে না পারে সেজন্য এই নিষেধাজ্ঞার দরকার ছিল। এছাড়া, এতে অর্থনৈতিক চাপেও পড়বে দেশটি।  

দ্য পোস্ট জানায়, ইরানের রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ নিয়ন্ত্রণকারী কম্পিউটার সিস্টেম টার্গেট করে সাইবার হামলা চালানো হয়। বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরেই এই হামলার পরিকল্পনা করা হচ্ছিল। গত মাসে দুই সৌদি ট্যাংকারে হামলার পরপরই এই পরিকল্পনা শুরু হয়। ইরানের ইসলামিক রেভুলিউশনারি গার্ড কর্পসের (আইআরজিসি) অস্ত্রব্যবস্থা টার্গেট করা হয় হামলাটিতে। গত বৃহ¯পতিবার মার্কিন ড্রোন ভ’পাতিত করেছিল আইআরজিসি। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, এই বাহিনীই সৌদি ট্যাংকারগুলোয় হামলা চালিয়েছিল। তবে ট্যাংকারে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছে ইরান।

দ্য পোস্ট ও বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছে, সাইবার হামলায় অচল হয়ে পড়েছিল আইআরজিসির কম্পিউটার ব্যবস্থা। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, সাময়িক সময়ের জন্য আইআরজিসির কম্পিউটার ব্যবস্থা অচল রাখতে চেয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। এই হামলা নিয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেননি ট্রাম্প।

এদিকে, শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে সাইবার হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে ইরান। সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার সিকিউরিটি এজেন্সির পরিচালক ক্রিস্টোফার ক্রেবস জানান, মার্কিন শিল্প  ও সরকারি সংস্তাগুলোর বিরুদ্ধে ক্ষতিকর সাইবার তৎপরতা বৃদ্ধি করেছে ইরান ও তাদের মিত্ররা। তারা ¯িপয়ার ফিশিং, পাসওয়ার্ড দখল, গুরুত্বপূর্ণ নথি চুরি করার মতো কৌশল ব্যবহার করে ধ্বংসাত্মক ‘ওয়াইপার’ হামলা চালাচ্ছে। তারা চেষ্টা করছে পুরো নেটওয়ার্ক দখলে নেয়ার। এমনকি মার্কিন নৌবাহিনীর জাহাজও হ্যাক করার চেষ্টা চালিয়েছে তারা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর