× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার

বগুড়ায় বিএনপির জিএম সিরাজ জয়ী

অনলাইন

বগুড়া প্রতিনিধি | ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, ৮:০৯

বগুড়া-৬ সদর আসনের উপ-নির্বাচনে বেসরকারিভাবে ধানের শীষের প্রার্থী গোলাম মোহাম্মাদ সিরাজ নির্বাচিত হয়েছেন। ১৪১ কেন্দ্রের মধ্যে সবকটি কেন্দ্রের প্রাপ্ত ভোট ধানের শীষে পড়েছে ৮৮ হাজার ৪২৩ ভোট, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকায় পড়েছে ৩২ হাজার ১৯৮ ভোট। সকাল নয়টা থেকে শুরু হয়ে ভোট গ্রহণ চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। এদিকে নির্বাচনে কেন্দ্রগুলোতে ভোটারের উপস্থিতি সকাল থেকে কম থাকলেও বিকেলের দিকে কিছুটা লক্ষ্য করা গেছে। এবার বগুড়ার এই উপ-নির্বাচনে ১৪১ কেন্দ্রের সবকটি কেন্দ্রেই ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিন ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে। এই আসনে উপ-নির্বাচনের ঘোষণার সময় ইভিএমে ভোট নেয়ার ঘোষণার পর সাধারণ ভোটারদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও শেষ পর্যন্ত বিএনপি আওয়ামী লীগসহ ভোটাররা এই পদ্ধতিতেই ভোট প্রদান করেছেন। সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ইভিএম নিয়ে ভীতি থাকলেও ভোটের আগে মহড়ার মাধ্যমে ভোটারদের পদ্ধতি শেখানো হয়েছে নির্বাচন অফিসের মাধ্যমে। ফলে ভোটের দিন তেমন প্রভাব পড়েনি।

এদিকে শহরের সেন্ট্রাল স্কুলে কেন্দ্রে ভোট শুরু ঘণ্টাখানেক পরে ধানের শীষের নির্বাচনী ক্যাম্পে নৌকার সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে। তাদের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে। ভোটার তালিকাসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছিনিয়ে নিয়েছে। এমন অভিযোগ করে জেলা কৃষক দলের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর ইসলাম সওদাগর বলেন, আমাদের নেতাকর্মীদের উপর হঠাৎ হামলা চালায় নৌকার সমর্থকরা। এসময় তাদের স্টল ভেঙে ফেলার পাশাপাশি সকালের নাস্তাগুলোও নিয়ে যায়। পরে পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে এসে নৌকার সমর্থকদের সতর্ক করেন। এবিষয়ে সদর থানার ইনপেক্টর আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ এমন ঘটনার কথা শোনার পরেই দ্রুত পুলিশ সেখানে যায় এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। এছাড়া এখন পর্যন্ত কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।
আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম আজম টিকুল জানান, বগুড়ার সর্বত্র শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ চলছে। কোথাও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তিনি মনে করেন ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ নিরপেক্ষ হবে। এদিকে ইভিএমে ভোট গ্রহণ নিয়ে বিএনপি নেতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আজগর তালুকদার হেনা বলেন, এখন প্রযুক্তির যুগ। ভোট গ্রহণ প্রযুক্তিতে হচ্ছে। এটি খুব ভালো উদ্যোগ। যদি সরকার এই পদ্ধতিতে কোন অসৎ উদ্দেশ্য না রাখে। তবে সব মিলে এটি ভালো এবং প্রশংসার যোগ্য।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Mahfuz
২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, ৯:১৭

আর কতো নাটক দেখবো আল্লাহ মালুম।

M A Hoque
২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, ৮:২৩

শান্তি পূর্ণ নির্বাচন ? জনগণকে কি বুঝাতে ছায় নির্বাচন কমিশন ? আমরা কি ভালো হয়ে গেছি, জনগণ বিশ্বাস করবে কি?

প্রতিবাধী
২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, ৭:১৯

ভালো ভাবে ভোট হলে , জনগন ভোট দিতে পারলে যে কোন জেলায় বি ত্রন পিই পাশ করবে

অন্যান্য খবর