× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

কাঁচপুরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

বাংলারজমিন

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি | ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:৩৫

কাঁচপুরে শীতলক্ষ্যা নদীর পূর্ব তীরে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে বিআইডাব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ। রোববার  সকাল থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলে। অভিযানে নওয়াব আব্দুল মালেক জুটমিল, একটি তিনতলা ভবন ও একটি দোতলা ভবনসহ কাঁচা পাকা প্রায় ৩০টি স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়েছে। নদী ভরাট করায় সোলায়মান নামের এক জনকে অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিআইডাব্লিউটিএ-র নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক গুলজার আলী, উপপরিচালক মো. শহিদুল্লাহ, সহকারী পরিচালক এহতেশামুল পারভেজ। বিআইডব্লিউটিএ-র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান জানান, কাঁচপুরে শীতলক্ষ্যা নদীর পূর্ব তীর দখল করে গড়ে ওঠা আব্দুল মালেক জুট মিলকে গত এক বছর আগে নোটিশ দিলেও তারা কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় রোববার উচ্ছেদ করে জুট মিলের গুদামের কিছু অংশ ভেঙে দেয়া হয়। জুট মিলটির জিএম জাফর আহমদ মুচলেকা দিয়েছেন ১৫ দিনের মধ্যে ভরাটকৃত অংশ সরিয়ে নেবেন।
এদিকে নদীর তীর দখল করে গড়ে ওঠা একটি ৩তলা পাকা ভবনের আংশিক গুঁড়িয়ে দেয়া হয়।
ভবনটির মালিক সোলায়মান হক পার্শ্ববর্তী পেপার মিলের বর্জ্য দিয়ে নদী ভরাট করছিল। এজন্য তাকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। অভিযানে প্রায় কাঁচাপাকা ৩০টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। বিআইডব্লিউটিএ-র নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের উপপরিচালক মো. শহীদুল্লাহ জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশে ধারাবাহিকভাবে এ উচ্ছেদ অভিযান চলছে। নদীর তীর দখল করে গড়ে ওঠা সব রকমের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর