× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার

লর্ডসে আজ মুখোমুখি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:১৪

লর্ডসের ভিআইপি গ্যালারিতে আজ নিশ্চয়ই দেখা যাবে গ্রাহাম গুচকে! বিশ্বকাপে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ড সর্বশেষ মুখোমুখি হয়েছিল এ ভেন্যুতেই, ১৯৭৯ আসরের সেমিফাইনালে। ৫৩ রানের ইনিংস খেলে ইংলিশদের প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলেছিলেন গুচ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে ৪০ বছর পর আজ তার উত্তরসূরিরা লর্ডসে খেলতে নামছে। তাদের উৎসাহ দিতে গুচের পাশাপাশি গ্যালারিতে থাকবে ইংল্যান্ডের হাজার হাজার সমর্থকও। সেমিফাইনালের রাস্তা পরিস্কার করতে এ ম্যাচে ইংলিশদের জয়টা খুব দরকার। ৬ ম্যাচে ৪ জয়, ২ হারে স্বাগতিকরা রয়েছে চতুর্থ স্থানে। সমান ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে অস্ট্রেলিয়া। আগের ৭ দেখায় ৫ বারই জিতেছে জিতেছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।
আর ১৯৯২ সালের পর বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অজেয় দলটি। তবুও অজি কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার আজকের ম্যাচে এগিয়ে রাখছেন ইংল্যান্ডকেই। ক্রিকেটের তীর্থস্থানে ঐতিহ্যবাহী দু’দলের ম্যাচটির জন্য একেবারে মুখিয়ে আছেন তিনি।
ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিয়ের শীর্ষ দল ইংল্যান্ড ফেবারিটের মতোই এগোচ্ছিল এবারের বিশ্বকাপে। কিন্তু নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে যাওয়ায় শেষ চারের পথটা কিছুটা কঠিন হয়ে গেছে তাদের জন্য। অস্ট্রেলিয়ার পর ইংল্যান্ডের বাকি দুই ম্যাচ নিউজিল্যান্ড ও ভারতের বিপক্ষে। গত ২৭ বছরে বিশ্বকাপে ওই দুই দলকেও হারাতে পারেনি ইংল্যান্ড। নিজেদের শেষ তিন ম্যাচ হারলে রাউন্ড রবিন লীগ থেকেই ছিটকে যেতে পারে এউইন মরগানের দল। তবে অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার মনে করেন না ইংল্যান্ড চাপে থাকবে। গতকাল গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে অজিদের সাবেক এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘ওরা বিশ্বের সেরা দল। ওদের দলটা দেখুন, এক সপ্তাহে কোনো কিছু বদলে যাবে না।’
ইংল্যান্ডের এই দলের কাছে গত বছর ধবল ধোলাই হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ট্রেন্ট ব্রিজের ম্যাচটিতে তো ৪৮১ রান তুলে সর্বোচ্চ দলীয় ইনিংসের বিশ্বরেকর্ড গড়ে ইংল্যান্ড। ল্যাঙ্গার তাদের ব্যাটিং শক্তি সম্পর্কে ভালোই জানেন। ইংল্যান্ডের রয়েছে জনি বেয়ারস্টো, এউইন মরগান, জো রুট ও জস বাটলারের মতো ক্রিকেটারা। গত ২-৩ বছর ধরে প্রত্যেকেরই ব্যাটিং গড় ৪০’র উপর। রুট তো চলতি বিশ্বকাপের তৃতীয় সর্বাধিক রান (৪২৪) সংগ্রাহক। তাদের প্রত্যেককে নিয়ে আলাদা পরিকল্পনা আছে অস্ট্রেলিয়ার। তবে বিধ্বংসী বাটলারের কথা আলাদা করে বললেন ল্যাঙ্গার। তিনি বলেন, ‘ওদের ব্যাটিংটা অনেক শক্তিশালী। বাটলার (জস) অসাধারণ ব্যাটিং করে। ক্রিকেট বিশ্বের নতুন ধোনি (মহেন্দ্র সিং) সে। আমি চাই মঙ্গলবার (আজ) ও শূন্য রানে আউট হোক।’
তবে ২০১৮ সালের অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে অনেক পার্থক্য বর্তমান দলের। ডেভিড ওয়ার্নার-স্টিভ স্মিথ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরতেই পুরনো চেহারায় অজিরা। ওয়ার্নার রয়েছে তুখোড় ফর্মে। বিশ্বকাপে ৪৪৭ রান করেছেন এ বাঁহাতি। স্মিথও প্রতি ম্যাচেই দলে অবদান রাখছেন। তবে অস্ট্রেলিয়াকে ম্যাচ জেতাচ্ছেন তাদের বোলাররা। মিচেল স্টার্ক-প্যাট কামিন্স জুটি এখন পর্যন্ত ২৬ উইকেট নিয়েছেন। ইংল্যান্ডের জোফরা আর্চার-মার্ক উড জুটি তো আরো সফল। দুজনে মিলে নিয়েছেন ২৭ উইকেট। ফলে লর্ডসে ব্যাটে-বলে একটা জমজমাট লড়াই আশা করছে ক্রিকেট ভক্তরা। বিবিসির আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, লর্ডনে আজ সকালের দিকে বৃষ্টি হতে পারে। বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা কমে আসবে। তবে আকাশ মেঘলা থাকবে দিনের অধিকাংশ সময়ই।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর