× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার

ভিভ, গাঙ্গুলী-ওয়াহকে ছাড়িয়ে সাকিব

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:১৪

বিশ্বকাপে ১০০০ রান পূর্ণ হলো সাকিব আল হাসানের। ক্রিকেটের মহামঞ্চে ব্যাট হাতে নৈপুণ্য নিয়ে সাকিব ছাড়িয়ে গেলেন ভিভ রিচার্ডস, সৌরভ গাঙ্গুলী, মার্ক ওয়াহর মতো তারকাদের। সুযোগ এসেছিল আগের ম্যাচেই। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিশাল টার্গেট তাড়া করেতে নেমে ৪১ বলে ৪১ রানে থেমে গেলে বাড়ে অপেক্ষা। আফগানিস্তানের বিপক্ষে এই মাইলফলকে যেতে তাই ৩৫ রান লাগতো সাকিব আল হাসানের। তিনে নেমে প্রতি ম্যাচেই ব্যাটিংয়ে ঝলক দেখানো সাকিব সাবলীল ব্যাট চালিয়ে দ্রুতই স্পর্শ করলেন তা। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে সাকিবের নামের পাশে এখন এক হাজার বিশ্বকাপ রান। বিশ্বকাপে রান সংগ্রহে সাকিব ছাড়িয়ে গেছেন ক্রারিবীয় লিজেন্ড ভিভ রিচার্ডস, ভারতীয় তারকা সৌরভ গাঙ্গুলি, অজি ব্যাটসম্যান মার্ক ওয়াহর মতো তারকাদেরও।
উইকেট মন্থর, মাঠ বড়।
আফগান অফ স্পিনার মুজিব উর রহমান আর মোহাম্মদ নবীকে সামলাতে কৌশল বদলে নামে বাংলাদেশ। তামিম ইকবালের সঙ্গে ইনিংস ওপেন করতে নামেন লিটন দাস। শুরু থেকে তিনিও ছিলেন সাবলীল। মুজিবের বলে দলীয় ২৩ রানে তিনি ক্যাচ দিয়ে ফেরত গেলে ক্রিজে আসেন সাকিব। দ্বিতীয় উইকেটে তামিমের সঙ্গে গড়েন ৫৯ রানের জুটি। তাতে সাকিবই ছিলেন বেশি স্বচ্ছন্দ। ৫৩ বলে ৩৬ রান করে তামিম ফেরার পর মুশফিকুর রহীমকে নিয়ে গড়েন ৬১ রানের জুটি। আর ব্যক্তিগত ৫১ রানে সাকিব যখন সাজঘরে ফেরেন ততক্ষণে বিশ্বকাপে তার মোট সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ১০১৬ রানে (২ সেঞ্চুরি ৭ হাফসেঞ্চুরি)। এর ৪৭৬ রানই চলতি বিশ্বকাপের। এবারের বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে ছয় ইনিংসে তিনটি অর্ধশতক ও দুটি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন সাকিব।
এই মাইলফলকে পৌঁছানোর বেশ কয়েক ওভার আগেই অবশ্য অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নারকে টপকে এবারের আসরে রান সংগ্রহে এক নম্বরে উঠে যান বাংলাদেশের এ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। আসরে ৭ ম্যাচে ওয়ার্নারের সংগ্রহ ৪৪৭ রান।
বিশ্বকাপে হাজার রানে যেতে সাকিবের লাগলো ২৭ ম্যাচ। এক হাজারের বেশি রানের সঙ্গে বল হাতেও সাকিবের শিকার ২৮টি। বিশ্বকাপে ১০০০ রান ও ৩০ উইকেটের রেকর্ড নেই কোনো ক্রিকেটারের। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের জার্সিতে সবচেয়ে বেশি রান সংগ্রহে সাকিবের পরেই আছেন মুশফিকুর রহিম। ২৬ ম্যাচে মুশফিকুর রহীমের সংগ্রহ ৮৩৭ রান। সাকিবের সমান ২৭ ম্যাচ খেলে তামিম আছেন ৬৮২ রানে। ২০০৭ বিশ্বকাপে প্রথমবার নেমেই ভারতের বিপক্ষে ফিফটি করেছিলেন সাকিব। এরপর খেলেছেন ২০১১ আর ২০১৫ বিশ্বকাপে। আগের তিন বিশ্বকাপ মিলিয়ে তার সংগ্রহ ছিল ৫৪৬ রান। বিশ্বকাপে ১০০০ রানের কৃতিত্ব দেখানো মাত্র ১৯৩ম ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। এমন তালিকার ১৬তম স্থানে রয়েছেন সাকিব। তালিকায় সাকিবের পেছনে আছেন ভিভ রিচার্ডস (১০১৩), সৌরভ গাঙ্গুলী (১০০৬) ও মার্ক ওয়াহ (১০০৪)। বিশ্বকাপে সর্বাধিক ২২৭৮ রানের রেকর্ড ভারতীয় গ্রেট ব্যটসম্যান শচীন টেন্ডুলকারের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর