× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ জুলাই ২০১৯, বুধবার

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ মানবপাচারকারী নিহত

অনলাইন

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি | ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:২৪

টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন যুবক নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি, নিহতরা মানবপাচার মামলার পলাতক আসামি ছিলো। আজ সোমবার ভোরে  টেকনাফ উপজেলার মহেষখালিয়াপাড়া নৌকা ঘাটে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৩টি এলজি, শর্টগানের ১৫টি তাজা গুলি ও ২০টি খালি খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।          

নিহতরা হলেন, টেকনাফ সাবরাং ইউনিয়নের নয়াপাড়ার বাসিন্দা আবদুর শুক্কুরের ছেলে কোরবান আলী (৩০), পৌরসভার কে কে পাড়ার আলী হোসেনের ছেলে আবদুল কাদের (২৫) ও একই এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে আবদুর রহমান (৩০)।

ওসি জানান, রাতে পলাতক আসামিদের ধরতে পুলিশের একটি দল উপজেলার মহেষখালিয়াপাড়ার নৌকা ঘাট এলাকায় পৌঁছায়। তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে সেখানে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় মানবপাচারকারী দলের সদস্যরা। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে অস্ত্রধারীরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তিনজনকে উদ্ধার করা হয়।
এ সময় পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সায়েফ, কনস্টেবল মোহাম্মদ শুক্কুর আহত হন।  তাদের উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন। তবে আহত পুলিশের দুই সদস্যকে সেখানেই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। আর সদর হাসপাতালে নেয়া হলে গুলিবিদ্ধ তিনজনকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে মর্গে রাখা হয়েছে।

ওসি আরো জানান, নিহত তিনজনের বিরুদ্ধে ১৫ জন রোহিঙ্গাকে পাচারের অভিযোগে মামলা রয়েছে। এ মামলায় তারা পলাতক ছিলো। শরণার্থী শিবির থেকে রোহিঙ্গাদের কৌশলে মালয়েশিয়া পাঠানোর কথা বলে টাকা-পয়সা আত্মসাৎ করছিলেন তারা। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় পৃথক মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর