× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৯, শনিবার

ইংলিশ সমর্থকদের স্লেজিংই তাতিয়ে দিয়েছিল স্টার্ককে

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৯:৩২

মিচেল স্টার্কের বলটা ঝড়ের বেগে এসে লাগল স্টাম্পে। স্টার্কের ইয়র্কার আটকাতে না পেরে ব্যাটটাই হাত থেকে ফেলে দিলেন বেন স্টোকস, সেটিকে লাথিও মারলেন। স্টোকসের এই আউটই অস্ট্রেলিয়ার জয় মোটামুটি নিশ্চিত করে দেয়। মঙ্গলবার লর্ডসে আগুন ঝরানো বোলিংয়ে স্টার্ক নিয়েছেন চার উইকেট, উঠে এসেছেন বিশ্বকাপের উইকেট শিকারির তালিকার শীর্ষেও। ম্যাচের পর স্টার্কের স্ত্রী অজি ক্রিকেটার অ্যালিসা হিলি এক টুইটে বলেন, ম্যাচের দিন সকালে এক ইংলিশ সমর্থক ‘স্লেজিং’ করেছিলেন স্টার্ককে। সেটাই নাকি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের সময় তাতিয়ে দিয়েছিল তাকে!  
ম্যাচের দিন সকালে হোটেলে বসে সকালের নাশতা সারছিলেন স্টার্ক ও অ্যালিসা। স্টার্কের নাশতায় ছিল তার পছন্দের তিনটি ডিম পোচ। ওই সময় একজন ইংলিশ সমর্থক এসে তার নাশতা ও বোলিং নিয়ে কিছু কথা শুনিয়ে দেন।
ম্যাচে অবশ্য বল হাতেই সেটার জবাব দিয়েছেন স্টার্ক। ৪৩ রানে নিয়েছেন চার উইকেট, দারুণ এক ডেলিভারিতে ফিরিয়েছেন স্টোকসকে।  ম্যাচ শেষে স্টার্কের স্ত্রী এক টুইটে লিখেন, ‘ধন্যবাদ সেই ইংলিশ সমর্থককে যে নাশতার টেবিলে স্টার্ককে তাতিয়ে দিয়েছিলেন!’ স্টার্ক অবশ্য সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ওই সমর্থকের কথায় একটুও রাগ করেননি তিনি, ‘একজন এসে আমার বোলিং ও কনুইয়ে লাগানো টেপ নিয়ে কিছু কথা বলেছিল নাশতার সময়। আমার তখন খুব ক্ষুধা পেয়েছিল, আমি তো আধো ঘুমেই ছিলাম! তার ওসব কথা হেসেই উড়িয়ে দিয়েছি। এখন পর্যন্ত এই টুর্নামেন্টে হোটেল ও হোটেলের বাইরে দর্শকের আচরণ উপভোগ্যই ছিল আমার কাছে। এটা বিশ্বকাপেরই অংশ।’ অস্ট্রেলিয়ার জয়ের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন এক স্টোকসই। তাকে দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে ফিরিয়ে অজিদের জয়ের পথটা মসৃণ করেন স্টার্ক। ১৯ উইকেট নিয়ে তিনিই এখন পর্যন্ত এই বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। স্টোকসকে এভাবে ফেরাতে পেরে খুশি স্টার্ক, ‘সে দারুণ একজন ক্রিকেটার। ওই মুহূর্তে তাকে ফেরানোটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সে একাই ৮০ রান করে দলকে জয়ের পথে রেখেছিল। আমরা জানতাম যতক্ষণ সে ক্রিজে আছে ততক্ষণ আমাদের স্বস্তিতে থাকার সুযোগ নেই। সৌভাগ্যক্রমে আমি তাকে ওইভাবে ফেরাতে পেরেছি। যেখানে বলটা ফেলতে চেয়েছিলাম সেখানেই ফেলেছি।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর