× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার

হেডিংলির আকাশে ‘জাস্টিস ফর কাশ্মীর’, ভারতের তীব্র প্রতিবাদ

ক্রিকেট বিশ্বকাপ-২০১৯

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৮ জুলাই ২০১৯, সোমবার, ৯:১৩

পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের ম্যাচে ‘জাস্টিস ফর বেলুচিস্তান’ লেখা ব্যানার আকাশে উড়ার পর আইসিসি আশ্বাস দিয়েছিল এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না আর। কিন্তু এক সপ্তাহের ব্যবধানে লিডসের হেডিংলিতেই কাশ্মীর স্বাধীনের দাবিতে আকাশে উড়লো আরো একটি ব্যানার। বিষয়টির নিয়ে তদন্ত করছে আইসিসি। ভারত ক্রিকেট বোর্ডও আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিবাদ জানিয়েছে আইসিসির কাছে।
হেডিংলিতে গতকাল রাউন্ড রবিনের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও শ্রীলঙ্কা। তাদের খেলা শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরই একটি বিমানের সাহায্যে মাঠের উপর দিয়ে উড়তে দেখা যায় একটি ব্যানার, যেখানে লেখা ‘জাস্টিস ফর কাশ্মীর’। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশদের কাছ থেকে স্বাধীন হওয়ার পর ভারত ও পাকিস্তানকে ভাগ করে দেয়া হয় কাশ্মীর। দুই দেশই এর দখলদারিত্বের জন্য গত তিন দশক ধরে লড়াই করছে।
প্রায় এক লাখ মানুষের প্রাণহানি হয়েছে, যার অধিকাংশই বেসামরিক। ক্রিকেটের মধ্যে রাজনীতি ও বর্ণবৈষম্যের ব্যাপারে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে বিশ্বাসী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে, ‘আবারো এমন ঘটনা ঘটায় আমরা খুবই হতাশ। আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে কোনো ধরনের রাজনৈতিক বার্তা আমরা সহ্য করতে পারি না। আগের ঘটনার পর পশ্চিম ইয়র্কশায়ার পুলিশ আমাদের আশ্বস্ত করেছিল এমনটা আর ঘটবে না। কিন্তু আবারো হলো, তাতে আমরা খুবই অসন্তুষ্ট।’ গত শনিবার পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের ম্যাচে বেলুচিস্তান স্বাধীনের দাবিতে একটি ব্যানার উড়েছিল এই হেডিংলির আকাশে। ওইদিন দুই দেশের সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতিও হয়েছে। পুলিশ বিষয়টি আমলে নিয়ে তদন্ত শুরু করেছিল। কিন্তু তার শেষ না হতেই ঘটলো নতুন আরো একটি ঘটনা। এদিকে ঘটনার দু’দিন পর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) এই ঘটনার আনুষ্ঠানিকভাবে আইসিসির কাছে কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে। প্রথমে তারা ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা নিয়ে আশঙ্কা ব্যক্ত করেছে। ধোনি উইকেটকিপিং গ্লাভসে সেনাবাহিনীর বিশেষ চিহ্ন নিয়ে খেলায় আইসিসি সেটা তাকে খুলতে বাধ্য করেছিল - তাহলে এখানে কেন ব্যবস্থা নিতে এত দেরি হচ্ছে? আইসিসি সূত্রগুলো জানাচ্ছে, বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ম্যাচগুলোরে সময় স্টেডিয়ামের ওপর যাতে নো-ফ্লাই জোন বলবৎ করা হয়, তারা এখন সেটাই নিশ্চিত করতে চাইছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
আসমাত মির্জা
৮ জুলাই ২০১৯, সোমবার, ১১:১৬

এখন তো সময় ‘জাস্টিস ফর পাকিস্তান’ আর ‘জাস্টিস ফর ইণ্ডিয়া’ ব্যানার ওড়ানোর। তাদের নিজেদের দেশেই নাগরিকদের সাথে যা সব হচ্ছে!

Quazi Nasrullah
৭ জুলাই ২০১৯, রবিবার, ৭:৫৬

Dear leaders, any body can want liberty, independence. That is his or her right. None should protest against it. But, the leadership investigate into the matter why it comes, how it can be mitigated gently.

অন্যান্য খবর