× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ জুলাই ২০১৯, শুক্রবার

আফগানিস্তানের কাছে হারলো বাংলাদেশ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৯ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:৩৮

হতাশার বিশ্বকাপ কাটিয়ে রোববার দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। একদিন না পেরোতেই আবারও হতাশার খবর দিলো বাংলাদেশ ‘এ’ দল। খুলনায় অনুষ্ঠিত চারদিনের ম্যাচে আফগানিন্তান ‘এ’ দলের কাছে ৭ উইকেটে হেরেছে  স্বাগতিকরা। ফলে দুই ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো সফরকারী আফগানিস্তান।
গতকাল ম্যাচের চতুর্থ ও শেষ দিনে ৯ উইকেটে ১৭০ রান নিয়ে খেলা শুরু করা বাংলাদেশকে ১৭৫ রানে থামিয়ে দেন কায়েস আহমেদ। সুমন খানকে ফিরিয়ে ইনিংসে সপ্তম ও ম্যাচে দশম উইকেট নেন এই আফগান লেগ স্পিনার। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেয়া ১৭৩ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান উসমান গনিকে হারায় আফগানরা। দলীয় দুই রানে তাকে উইকেটরক্ষক এনামুল হক বিজয়ের ক্যাচে পরিণত করেন পেসার সালাউদ্দিন শাকিল। তবে ওয়ান ডাউনে নামা বহির শাহকে নিয়ে জয়ের পথে এগোতে থাকেন আরেক ওপেনার ইব্রাহিম জাদরান।
এই জুটি ৪০রান পেরোতেই আবারো বাংলাদেশকে ব্রেক থ্র এনে দেন শাকিল। ব্যক্তিগত ২০ রানের মাথায় উসমানের মতোই বহিরকে এনামুলের ক্যাচে পরিণত করেন এই পেসার। কিছুক্ষণ পর দলীয় ৭১ রানে বাঁহাতি অফস্পিনার সাঞ্জামুল ইসলামের বলে শহিদুল্লাহ আউট হলে তৃতীয় উইকেট হারায় আফগানরা। ফলে জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে বাংলাদেশ। কিন্তু টাইগারদের এই স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দেন দুই আফগান ব্যাটসম্যান ইব্রাহিম জাদরান ও নাসির জামাল। ১০২ রানের দুর্দান্ত এক জুটি গড়ে শেষ পর্যন্ত জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন দুই ব্যাটসম্যান। ৬ চারে ৭৬ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন ইব্রাহিম এবং ৭ চারে ৫৯ রানে অপরাজিত থাকেন আফগান অধিনায়ক নাসিম। ফলে ৭ উইকেটের বড় জয় পায় আফগানিস্তান ‘এ’ দল। তবে তাদের এ জয়ের মূল নায়ক হলেন লেগস্পিনার কায়েস আহমেদ। দুই ইনিংস মিলিয়ে ১০ উইকেট নিয়ে একাই বাংলাদেশকে গুঁড়িয়ে দেন তিনি। ম্যাচ সেরার পুরস্কারটাও ওঠে তার হাতে।
চারদিনের এই ম্যাচে প্রথম দিনে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে এনামুলের সেঞ্চুরি (১২১) ও আফিফ হোসেইনের ফিফটিতে (৫০) ২৫৩ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। কায়েস আহমেদের ৪৬ রান ও আফসার জাজাইয়ের ৪৫ রানের দৃঢ়তায় প্রথম ইনিংসে ২৫৭ রান করে আফগানিস্তান। ফলে ৪ রানের লিড নিয়ে এগিয়ে থাকে তারা। বাংলাদেশের পক্ষে সমান তিনটি করে উইকেট নেন সাঞ্জামুল ইসলাম, কামরুল হাসান রাব্বি ও তানবীর হায়দার। দ্বিতীয় ইনিংসে কায়েস আহমেদের ঘূর্ণির কবলে পরে মাত্র ১৭৫ রানেই অল আউট হয় বাংলাদেশ ‘এ’ দল। আফগানদের হয়ে একাই ৭ উইকেট নেন এই লেগ স্পিনার।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর