× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার
সিসা বারে অবকাশ যাপন

সানিয়া মির্জা ও পাকিস্তানি চার ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে মামলা

ক্রিকেট বিশ্বকাপ-২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক | ১০ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ৮:৩০

বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তানের হার শেষে আলোড়ন তোলে এক খবর। ইংল্যান্ডের এক সিসা বারে পাকিস্তানি চার ক্রিকেটারের সঙ্গে টেনিস তারকা সানিয়া মির্জার এক ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করেন এক ক্রিকেট সমর্থক। এবার সেই ঘটনার জের ধরে ওই চার পাকিস্তানি ক্রিকেটার এবং সানিয়া মির্জার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। সিন্ধু হাইকোর্টে অভিযোগটি দায়ের করেছেন দেশটির এক আইনজীবী।
বিশ্বকাপের রাউন্ড রবিন লীগ পর্বের ম্যাচে গত ১৬ জুন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে বড় ব্যবধানে হেরে যায় পাকিস্তান। কিন্তু সেই হারের চেয়েও যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশি আলোড়ন সৃষ্টি করে তা হলো- সিসা বারে ৪ পাকিস্তানি ক্রিকেটারের উপস্থিতি।
ভারত-পাকিস্তানের ওই ম্যাচ শেষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। যেখানে দেখা যায় চার পাক ক্রিকেটার ওয়াহাব রিয়াজ, ইমাম-উল-হক, ইমাদ ওয়াসিম, শোয়েব মালিক ও তার স্ত্রী সানিয়া মীর্জা নিজেদের শিশুপুত্রকে নিয়ে ম্যানচেস্টারের ক্যাফে লাউঞ্জের সিসা বারে অবকাশ যাপন করছেন।
পাকিস্তানের সমর্থকরা তখন দাবি তোলে, ম্যাচের আগের দিন সিসা বারে সময় কাটিয়ে ম্যাচের দিকে মনোযোগ দিতে পারেনি ক্রিকেটাররা। এ কারণেই ভারতের বিপক্ষে দলের ভরাডুবি।
আবদুল জলিল মারওয়াত নামের ওই পাকিস্তানি আইনজীবীর দাবি, সিসা টানার কারণেই মাঠে খারাপ পারফরম্যান্স করেছে পাকিস্তান দল। সেইসঙ্গে তিনি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি), আইসিসির বিরুদ্ধেও অভিযোগ করা হয়েছে।
অভিযোগপত্রে জানানো হয়, ‘গুরুত্বপূর্ণ ওই ম্যাচে শোয়েব মালিক করেন শূন্য রান, ইমাম-উল-হক করেন ৭ রান এবং ওয়াহাব রিয়াজ মাত্র একটি উইকেট পান। এ ছাড়াও শিশু নিয়ে সিসা লাউঞ্জে যাওয়া গর্হিত অপরাধ। মারওয়াত আদালতের কাছে আপিল করেছেন, পিসিবির কাছে যেন জানতে চাওয়া হয়, কেন তারা ওই চার ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে কোনো প্রকার ব্যবস্থা নেয়নি। ওই ঘটনার পর আত্মপক্ষ নিয়ে শোয়েব মালিক বলেন, ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগের রাতে নয়, সিসা বারে গিয়েছিলেন তারা তারও দু’দিন আগে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর