× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার

শবনমের পা ছুঁয়ে সম্মান জানালেন আতিফ আসলাম

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক | ১০ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ১:৫০

কিংবদন্তি অভিনেত্রী শবনমের পা ছুঁয়ে সম্মান জানিয়ে তাকে উৎসর্গ করে গান পরিবেশন করলেন পাকিস্তানি গায়ক আতিফ আসলাম। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৭ই জুলাই সন্ধ্যায় পাকিস্তানের করাচিতে। পাকিস্তানের গণমাধ্যম ডনে প্রকাশিত এক খবরে জানানো হয়, ঐদিন করাচিতে আলো ঝলমলে ‘লাক্স স্টাইল অ্যাওয়ার্ড-২০১৯’ অনুষ্ঠানে আজীবন সম্মাননায় ভূষিত করা হয় অভিনেত্রী শবনমকে। পুরস্কার প্রদানের আগে মঞ্চে গান পরিবেশন করতে ওঠেন জনপ্রিয় শিল্পী আতিফ আসলাম। এ সময় সামনের সারিতে বসে থাকা শবনমকে দেখে তিনি মঞ্চ থেকে নেমে আসেন। পা ছুঁয়ে সালাম করে তাকে নিয়ে আবার মঞ্চে ওঠেন। তারপর তাকে উৎসর্গ করে কণ্ঠে তোলেন ‘মুঝছে দিল সে না ভুলেনা’ গানটি। ১৯৭৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত‘আইনা’ চলচ্চিত্রে পাকিস্তানি সংগীতশিল্পী মেহনাজ ও আলমগীরের এ গানে ঠোঁট মিলিয়েছিলেন শবনম-নাদিম জুটি।
চার যুগের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে পাকিস্তানি নায়ক নাদিমের সঙ্গে বেশ কিছু আলোচিত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন শবনম। তাদের জুটি দর্শক মহলে আলাদা গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছিল। অন্ষ্ঠুানে শবনমের সঙ্গে নাদিমও উপস্থিত ছিলেন। শবনমকে উৎসর্গ করে অনুষ্ঠানে ‘আইনা’ চলচ্চিত্রের ‘ওয়াদা করো সজনা’, ‘দোস্তি’ চলচ্চিত্রের ‘ছিট্টি জারা সায়ায়েন জি কে নাম’ ও ‘মান কি জিত’ চলচ্চিত্রের ‘মেরা বাবু ছেইল চাবেলা’ গানের তালে নৃত্য পরিবেশন করেন পাকিস্তানের শিল্পীরা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিল্পী-দর্শকের মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে ১৭০টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করা শবনম। প্রসঙ্গত, ১৯৬১ সালে ‘হারানো দিন’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ ঘটে শবনমের। ১৯৬২ সালে উর্দু চলচ্চিত্র ‘চান্দা’য় অভিনয় করে পাকিস্তানে রাতারাতি তারকাখ্যাতি পান। এরপর একে একে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের দর্শকপ্রিয় বিভিন্ন চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি। ১৯৯৯ সালে সর্বশেষ ‘আম্মাজান’ চলচ্চিত্রে দেখা গেছে তাকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর