× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ জুলাই ২০১৯, বুধবার

ট্রাম্প প্রশাসনকে অযোগ্য ও অদক্ষ দাবি করা বৃটিশ রাষ্ট্রদূতের পদত্যাগ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১০ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ৭:০০

পদত্যাগ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বৃটিশ রাষ্ট্রদূত স্যার কিম ড্যারচ। ট্রাম্প প্রশাসনকে অযোগ্য, অদক্ষ ও অনিরাপদ দাবি করা তার ইমেইল বার্তা প্রকাশিত হয়ে পরলে দুই দেশের সম্পর্কে ফাটল ধরার সম্ভাবনা দেখা দেয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প জানিয়ে দেন, তিনি আর ওই রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে কোনো ধরণের কাজ করছেন না। এরপরই বুধবার পদত্যাগের ঘোষণা দেন কিম ড্যারচ।

গত রোববার বৃটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়কে পাঠানো কিছু ইমেইলে ট্রাম্প প্রশাসন সম্পর্কে ওই মন্তব্য করেন রাষ্ট্রদূত কিম ড্যারচ। বৃটিশ এই শীর্ষ কূটনীতিকের মূল্যায়নে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাম্প প্রশাসন অপদার্থ, অদক্ষ ও তার ওপর নির্ভর করা যায় না। এছাড়া তিনি, হোয়াইট হাউজকে অকার্যকর ও বিভক্ত বলেও আখ্যায়িত করেন।

বৃটিশ পররাষ্ট্র মন্তনালয়ের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা সিমন ম্যাকডোনাল্ডকে লেখা চিঠিতে ড্যারচ বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাকে বোকা ও মূর্খ বলেছেন। এর অর্থ হচ্ছে তিনি আর এ পদে থাকতে পারছেন না।
তিনি আরো বলেন, ওই ইমেইল ফাঁসের পর পরিস্থিতি এমন অবস্থায় দাঁড়িয়েছে যে আমার পক্ষে কাজ চালিয়ে যাওয়া অসম্ভব হয়ে পরেছে। এ চিঠির উত্তরে ম্যাকডোনাল্ড বলেন, আপনি উদ্দেষ্যপ্রণদিত একটি ফাঁসের শিকার হয়েছেন। তিনি রাষ্ট্রদূত হিসেবে ড্যারচের প্রশংসা করেন। ম্যাকডোনাল্ড কিম ড্যারচকে সেরা হিসেবেও আখ্যায়িত করেছেন ওই চিঠিতে।

বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে জানিয়েছেন, তিনি ড্যারচের সঙ্গে কথা বলেছেন। এসময় তিনি ড্যারচের পদত্যাগ নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন। রোববারের ফাঁসের পরও প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কিম ড্যারচকে সমর্থন দিয়ে যাওয়ার কথা বলেছিলেন তিনি। যদিও তার ওই বক্তব্য তিনি সমর্থন করেন না বলেও জানিয়েছেন তেরেসা মে। পদত্যাগের পর মে বলেন, স্যার কিম আজীবন বৃটেনের সেবা করে গেছেন। আমরা তার কাছে কৃতজ্ঞ। একটি সুন্দর সরকার সবসময় তার কর্মচারিদের নির্দিধায় দেয়া উপদেশের ওপর নির্ভর করে। তিনি আরো বলেন, আমি চাই আমাদের সকল কর্মকর্তাই ড্যারচের মত আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠুক।

লেবার পার্টির প্রধান জেরেমি করবিনও কিম ড্যারচের প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেন, ড্যারচের সঙ্গে যা হয়েছে তা অন্যায্য ও ভুল। তিনি বৃটেনকে সম্মানজনক ও ভালভাবে সেবা দিয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর