× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার

ধোনির ‘রান আউট’ বিতর্কে ভারত জুড়ে নিন্দার ঝড়

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ২:৫৬

৪৯তম ওভারের প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। দ্বিতীয় বল ফাইন লেগে ঠেলে দৌড়ে ২ রান নিতে গেলেন। কিন্তু দ্বিতীয় রানটা পূর্ণ করার আগেই দারুণ এক থ্রো’তে স্টাম্প ভেঙে দিলেন মার্টিন গাপটিল। ভারতের ফাইনাল স্বপ্ন শেষ হয়ে গেলো নিমিষেই। কিন্তু ধোনির ওই রানআউট বিতর্ক বয়ে এনেছে। কারণ, বলটি ‘নো’ ছিল। আর তা নিয়ে ভারত জুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। আইসিসিকে রীতিমত ধুয়ে দিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকরা।

যে বলটাতে আউট হয়েছে সেটা ‘নো’ হয়েছে ফিল্ডার পজিশনের কারণে।
নিয়মানুযায়ী তৃতীয় পাওয়ার প্লে’তে ৩০ গজের বাইরে সর্বোচ্চ ৫ জন ফিল্ডার থাকার কথা। কিন্তু ৪৯তম ওভারে একজন বেশি ছিল। আর ফাইন লেগে ফিল্ডিং করছিলেন গাপটিল। কিন্তু ব্যাপারটা মাঠ আম্পায়ার রিচার্ড ক্যাটেলবরো কিংবা রিচার্ড ইলিংওর্থ কারোরই চোখে পড়েনি। আর পড়লেও নিয়ম মতে আউটই হতেন ধোনি। সেটা ব্যাপার না।  বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের মতো ম্যাচে এমন ভুল কেন হবে সে প্রশ্নটাই তুলেছেন সবাই। তাছাড়া ভারত একটা ‘ফ্রি হিট’ বঞ্চিত হয়েছে। তখন জয়ের জন্য ৯ বলে ২৪ রান প্রয়োজন ছিল দলটি। এমনও তো হতে পারতো যে শেষতক ব্যবধান গড়ে দিয়েছে ওই ফ্রি হিটটাই! অবশ্য ক্রিজে স্বীকৃত ব্যাটসম্যান বলতে কেউ ছিলেন না। তারপরও কোনোভাবেই আম্পায়ারের ভুল মানতে পারছেন না ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকরা। হর্ষপ্রিত রাজপুত নামের একজন টুইটারে লেখেন, ‘আম্পায়ারের উচিৎ ছিলো ওটাকে ডেড বল অথবা নো বল ঘোষণা করা। তারা এত কান্ডজ্ঞানহীন হয় কীভাবে।’ গুরু দারাহাস গুন্না নামের আরেকজন বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড চিট করেছে। চিট করে ধোনিকে আউট করেছে।  

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Karim khan
১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৫:২২

আম্পেয়ারদের নোংরামি শিখিয়েছে ইন্ডিয়ান ক্রিকেটাররা, ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড l

শামীম
১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৬:১৪

আম্পায়ার যখন ভারতের সাথে খেলায় বার বার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত দিতেন তখন এই সব নীতি কথা কোথায় থাকে। আসলে অতি দাম্ভিকতার পতন হয়েছে। যাও আপাতত মওকা মওকা গান গাও। আমি এই কথার সাথে ১০০% একমত।

Faruk Hossain
১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৪:০৫

আম্পায়ার যখন ভারতের সাথে খেলায় বার বার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত দিতেন তখন এই সব নীতি কথা কোথায় থাকে। আসলে অতি দাম্ভিকতার পতন হয়েছে। যাও আপাতত মওকা মওকা গান গাও।

অন্যান্য খবর