× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ আগস্ট ২০১৯, সোমবার

অজিদের রেকর্ড ভেঙে ২৭ বছর পর ফাইনালে বৃটিশরা

ক্রিকেট বিশ্বকাপ-২০১৯

বিশ্বকাপ ডেস্ক | ১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৩:০৩

অজিদের রেকর্ড  ভাঙলো। ছয় সেমিফাইনালে কেউ অজিদের টপকে ফাইনালের মুখ দেখেনি। ক্রিকেটে এক গৌরবময় অধ্যায়। রেকর্ড। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলে কেউই ফাইনালে যেতে পারেনি। হ্যাঁ, এই রেকর্ড ভাঙলো সেই বৃটিশরা। অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ফাইনালের মুখ দেখেছে এউইন মরগানের দল। শুধু তাই নয়, ১৯৯২ সালে সর্বশেষ পাকিস্তানের বিপক্ষে ফাইনাল খেলার পর আর ২৭ বছরে বিশ্বকাপের কোনো আসরে ফাইনাল খেলতে পারেনি ইংল্যান্ড।
এবার সেটা পারলো। পুরো ম্যাচে অজিদের সঙ্গে একচেটিয়া খেলে জেসন রয় আর মরগানরা আট উইকেটের দুর্দান্ত জয় ছিনিয়ে নেন।   

বিশ্বকাপের আসরে দ্বিতীয় সেমি ফাইনালে টস জিতে ব্যাট করে ইংলিশ বোলারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে ১ ওভার আগেই শেষ হয়ে যায় অজিদের ইনিংস। ইংলিশদের জন্য লক্ষ্যমাত্রা ২২৪ রান। এই রান করতে খুব বেশি বেগ পেতে হয়নি তাদের। মাত্র ৩২.১ ওভারে সহজেই জয় পেয়ে যায় মরগানের দল। জেসন রয় সর্বোচ্চ ৮৫ রান সংগ্রহ করেন। এছাড়া ২২৩ রান টপকাতে দলীয় অধিনায়ক জো রুটের ৪৯, মরগানের ৪৫ ও বেয়ারস্টোর ৩৪ রানের ইনিংসগুলোও ছিল নজরকাড়া। অজিদের সাদামাটা বোলিংয়ে মাত্র ইংলিশদের মাত্র দুটি উইকেটের পতন হয়। একটি রয় ও অন্যটি বেয়ারস্টোর।

এর আগে বার্মিংহামের এজবাস্টনে টস জিতে ব্যাট করতে নেমেই বিপাকে পড়ে অ্যারন ফিঞ্চের দল। দ্বিতীয় ওভারেই আর্চারের গতিময় বোলিংয়ের সামনে কাবু হয়ে ফেরেন অজি ক্যাপ্টেন। শুধু আর্চার নয়, আরেক ইংলিশ পেসার ক্রিস ওকসও পেস সুইংয়ে ছিন্নভিন্ন করে তোলে অজিদের টপঅর্ডার। ফিঞ্চের পরপরই ৯ রান করে ক্রিস ওকসের বলে বেয়ারস্টোকে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের মেশিন ডেভিড ওয়ার্নারও। ক্রিস ওকসকে সামাল দিতে পারেননি আরেক অজি ব্যাটসম্যান হ্যান্ডসকম্ব। মাত্র ৪ রান করে বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি। এরপর অজিদের হাল ধরেন স্মিথ ও অ্যালেক্স ক্যারি। দুজন মিলে শতরানের জুটিও গড়েন। তবে সে জুটি ভাঙেন আদিল রশিদ। ক্যারিকে অর্ধশতক হাঁকানোর আগেই বিদায় করেন তিনি। একই ওভারে হাফসেঞ্চুরি করা স্মিথকে সঙ্গ দিতে আসা স্টয়নিসকেও এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে সাজ ঘরে ফেরান আদিল রশিদ। তার জোড়া আঘাতে চাপে পড়লে নতুন ব্যাটসম্যান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল অস্ট্রেলিয়াকে চিন্তামুক্ত করার চেষ্টা করেন। তার স্বভাবসুলভ ব্যাটিংয়ে আসে ২১টি রান। যার মধ্যে ২ চার ও ১টি ছয়ের মারও ছিল। কিন্তু ইংলিশ পেসার আর্চারের বল বুঝে ওঠার আগেই ব্যাট চালিয়ে ক্যাচ আউট হয়ে ফেরেন ম্যাক্সওয়েল। পুরো আসরজুড়ে দাপুটে অস্ট্রেলিয়া আজ যেন ছন্দহীন। স্মিথকে সঙ্গ দিতে এসে কেউই দাঁড়াতে পারেননি। ৬ রান করা কামিন্সও ফিরলেন আদিল রশিদের ঘূর্ণিতে। এতেই ব্যাটহাতে চরম বিপর্যয়ে পড়ে ৫ বারের চ্যাম্পিয়নরা। দলের এই বিপদের সময় একাধারে উইকেট আগলে রাখা স্মিথও রান আউটের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন। অজি ব্যাটিং অর্ডারে তিনিই একমাত্র সর্বোচ্চ ৮৫ রান সংগ্রহ করেন। ইনিংসের শেষ দিকে তার সঙ্গে বেশ ছন্দে ব্যাট চালান মিচেল স্টার্ক। তবে তড়িঘড়ি করে রান নিতে গিয়ে তিনিও ভুল শট খেলে জস বাটলারকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন। তিনি করেন ৩৬ বলে ২৯ রান।  

এদিকে ইংলিশ বোলারদের মধ্যে ক্রিস ওকস মাত্র ২০ রান দিয়ে তিনটি উইকেট তুলে নেন। এছাড়া আদিল রশিদও নেন তিন উইকেট। পাশাপাশি আর্চার ২ ও মার্ক উড ১টি করে উইকেট সংগ্রহ করেন।

এর আগে বুধবার আসরের হট ফেবারিটের তকমা পাওয়া ভারতকে বিদায় করে দিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয় নিউজিল্যান্ড। টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে নাম লেখালো কিউইরা। আজ দ্বিতীয় সেমিতে  অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে কেন উইলিয়ামসনের দলের মুখোমুখি হলো ইংল্যান্ড। আগামী ১৪ই জুলাই নির্ধারণ হবে শিরোপা কাদের হচ্ছে।
 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Md Harun al Rashid
১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৪:২৪

we want to see new champions.Thanks to Australian top order batters for doing nothing.

অন্যান্য খবর