× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার

‘জয়টা স্মরণীয় হয়ে থাকবে’

ক্রিকেট বিশ্বকাপ-২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৩ জুলাই ২০১৯, শনিবার, ৮:৪২

দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ২৭ বছর পর বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ড। এজবাস্টনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৮ উইকেটের বিশাল জয় তুলে নেয় স্বাগতিকরা। আর সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয়টা স্মরণীয় হয়ে থাকবে মরগানের। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা। যে সমর্থকরা আজ মাঠে আমাদের সমর্থন করতে এসেছিলেন, তাদের ধন্যবাদ। এজবাস্টন সব সময় আমাদের পক্ষে এসেছে। এই মাঠে ভারতকে হারিয়েছিলাম। তাই আত্মবিশ্বাসটা দুর্দান্ত ছিল।
সেই মাঠে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে জেতাটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’
বিশ্বকাপের মঞ্চে শেষবার ১৯৯২ সালে ফাইনাল খেলেছিল ইংলিশরা। সেবার পাকিস্তানের বিপক্ষে হেরে অধরা থেকে যায় স্বপ্নের বিশ্বকাপ। এবার ফের বিশ্বকাপ জয়ের হাতছানি ইংল্যান্ডের। ৯২’র বিশ্বকাপ নিয়ে মরগান বলেন, ‘১৯৯২ সালে যখন আমরা ফাইনাল খেলেছিলাম তখন আমার বয়স ছিলো ছয় বছর। তাই সে দিনের কথা মনে নেই। তবে সেই ফাইনালের হাইলাইটস আমি অনেকবার দেখেছি। ফের আমাদের সামনে বিশ্বকাপ জয়ের সুযোগ। এই সুযোগ হাতছাড়া করা যাবে না।’
বৃহস্পতিবার টস হেরে আগে ফিল্ডিংয়ে নামে ইংল্যান্ড। দুর্দান্ত সুইং ও বাউন্সে কুপোকাত অজি ব্যাটিং লাইনআপ। বার্মিংহামের ‘লোকাল বয়’ ক্রিস ওকস ৮ ওভারে ২০ রান দিয়ে তুলে নেন ৩ উইকেট। আর ৩২ রান দিয়ে জফরা আর্চারের শিকার ২ উইকেট। দুর্দান্ত বোলিংয়ে ২২৩ রানে গুটিয়ে দেয় অজিদের ইনিংস। জবাবে ব্যাট করতে নেমে জেসন রয়ের (৮৫) দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ১০৭ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটে জয় তুলে নেয় ইংল্যান্ড। ম্যাচ নিয়ে মরগান বলেন, ‘ওকস ঠান্ডা মাথার বোলার। আজ দুর্দান্ত বল করেছে। ওকস ও জফরা বোলিং দুজনই দুর্দান্ত বোলিং করেছে। আর ওপেনিংয়ে জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো দারুণ ছন্দে রয়েছে। ২০১৫ সালে যে অবস্থায় দল ছিল তার চেয়ে অনেক উন্নতি করেছি আমরা। এই সাফল্য পুরো দলের।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর