× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার

গৃহকর্তার অত্যাচার থেকে পালাতে গিয়ে....

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ জুলাই ২০১৯, শনিবার, ৯:০৫

রাজধানীর ধানমন্ডিতে গৃহকর্তার নির্যাতন সইতে না পেরে ভবন থেকে রশি বেয়ে পালানোর সময় দুই শিশু আহত হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহকর্তাসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার  সকাল ১০টার দিকে ধানমন্ডির ১৪/এ সড়কের ২৮ নম্বর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হচ্ছে- ওই বাসার গৃহকর্মী মো. স্বপন (১১) এবং মো. শরীফ (১২)।

এ বিষয়ে ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল লতিফ বলেন, শরীফ ও স্বপন বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকায় ধানমন্ডির ১৪/এ সড়কের ২৮ নম্বর বাড়ির ৭/এ ফ্ল্যাটে গোলাম কিবরিয়ার বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতো। গৃহকর্তার নির্যাতন সইতে না পেরে সকাল ১০টার দিকে ওই দুই শিশু বাসার বাথরুমের ভেন্টিলেটর দিয়ে রশি বেয়ে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় রশি থেকে পড়ে শরীফ গুরুতর আহত হয়েছে। আর স্বপনকে ঝুলন্ত অবস্থায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধার করেছেন।
তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সে থানা হেফাজতে রয়েছে।

চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, রশি বেয়ে নামার সময় পড়ে শরীফের বাম পা ভেঙে গেছে। বর্তমানে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে ঘটনার পরপরই ওই বাসার গৃহকর্তা গোলাম কিবরিয়া এবং তার স্ত্রীসহ চারজনকে আটক করে থানায় নিয়ে এসেছে পুলিশ। ওসি আবদুল লতিফ বলেন, তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি, শরীফ ও স্বপনকে নির্যাতন করা হতো। এই নির্যাতন সইতে না পেরেই তারা পালানোর চেষ্টা চালায়। এ বিষয়ে বাড়ির লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদসহ বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
১৩ জুলাই ২০১৯, শনিবার, ১০:১০

শিশু শ্রম অপরাধ । তার উপর এই কচি শিশুরা অত্যাচারে পলায়ন করতে বাধ্য হয়ে ছিল । কি আর মন্তব্য করব । পুলিস যখন ধরেছে ।

Mollah Md. Nurul Isl
১৩ জুলাই ২০১৯, শনিবার, ৯:৩৬

ওরা জানোয়ার। ওদেরকে কঠিন শাস্তি দিন। হাত-পা কেটে থেতলে দিন। রশি দিয়ে বেধেঁ বেধরক পেটান। ওরা হায়েনা।

অন্যান্য খবর