× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার

দালাল ধরতে ডিসিদের সহায়তা চান প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ৯:১২

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, দেশে দালালদের দৌরাত্ম্য কমাতে জেলা প্রশাসকদের কোনো নির্দেশ দেইনি, সাহায্য চেয়েছি। দালালরা গরিবদের লুটেপুটে দেড় লাখ থেকে সাত লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। কারণ, তারা টাকা পয়সা উপার্জন করতে পারে না। তারা সেজন্য অবৈধভাবে থাকে। যা দেশের জন্য খারাপ। ডিসিদের কাছে এ বিষয়ে সহায়তা চেয়েছি। ডিসিরা আমাকে আশ্বাস দিয়েছেন, তারা আমার সঙ্গে থাকবেন। গতকাল সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে ডিসি সম্মেলনের তৃতীয় দিনের তৃতীয় অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।
প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, ডিসিদের কোনো নির্দেশ দেইনি, সাহায্য চেয়েছি। বিদেশগামী কর্মীদের জেলা পর্যায়েই সব প্রক্রিয়া শেষ করার দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা আগেই কাজ শুরু করেছি। যারা বিদেশগামী আছেন, তাদের নিবন্ধনের ব্যবস্থা করেছি। এর মধ্যে ডাটা ব্যাংক হিসাব আমরা চালু করেছি। আমরা প্রত্যেক জেলা, এমনকি ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে যাতে নিবন্ধন করা যায়, সেই ব্যবস্থা করব। সমুদ্রপথে বিদেশযাত্রার বিষয়ে তিনি বলেন, যারা অবৈধভাবে যান, আমি তো পুরো সমুদ্র পাহারা দিয়ে রাখতে পারব না। কিন্তু যেটা করতে পারি, যারা তাদের নিয়ে যান, তাদের ধরতে পারলে নিশ্চয়ই কাউকে ছাড়ব না। তথ্য থাকলে জানালে আমরা কাজে লাগাব।  দালালদের ধরার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, দালালদের ধরতে কিছুটা সময় লাগবে। এটা আমাদের কাজ না। পুলিশকে দিয়ে আমাদের এটা করাতে হবে। প্রবাসী শ্রমিক মারা গেলে মরদেহ আনতে হয়রানি হয়- এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রবাসে যারা মারা যান, বিশেষ করে যারা বৈধ পথে গেছেন, তাদের প্রাথমিক অবস্থায় দাফনের জন্য এয়ারপোর্টেই আমরা ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে থাকি। তারপর কল্যাণ ফান্ড থেকে আরও তিন লাখ টাকা দেয়া হয়। সমস্যা হয়, যারা অবৈধভাবে থাকেন, তাদের নিয়ে। তাদের কাগজপত্র না থাকায় তাদের জন্য তেমন কিছু করতে পারি না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর