× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার

‘ওভার থ্রো’ রানের ব্যাখ্যা আইসিসির

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৭ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ৯:২৮

ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড ফাইনালের শেষ ওভারের চতুর্থ বলে দৌড়ে ২ ও ওভার থ্রো থেকে ৪ রান মোট ৬ পায় ইংল্যান্ড। নিয়মানুযায়ী ৫ রান পাওয়ার কথা তাদের। এ ব্যাপারে সাবেক বিশ্বসেরা আম্পায়ার সাইমন টফেল বলেন, ‘আম্পায়ারের ভুলেই এমনটি হয়েছে।’ তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল আইসিসি বলছে, ‘মাঠে দায়িত্বরত আম্পায়ার আইন জেনেই সিদ্ধান্ত দিয়েছেন।’ এ বিষয়ে কোনো আর কোনো মন্তব্য করেনি ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটি।
এমসিসির আইন বইয়ের ১৯:৮ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কোনো ব্যাটসম্যান দৌড়ে একে অপরকে অতিক্রম করার আগেই থ্রো করা হলে, আর সেই থ্রোতে ওভার বাউন্ডারি হলে দৌড়ে নিতে যাওয়া রানটা বাতিল হয়ে যাবে আর ব্যাটসম্যানও বদল হবে। সে হিসাবে দৌড়ে নেয়া ২ রানের জায়গায় ইংল্যান্ড পেতো ১ রান। সঙ্গে স্ট্রাইকিং প্রাপ্তে স্টোকসের জায়গায় থাকতেন আদিল রশিদ। কিন্তু এমনটা হয়নি। কেন হয়নি সেটারও একটা যুক্তি আছে। বল যদি রানারের শরীরে বাধাপ্রাপ্ত হয়ে বাউন্ডারি হয় সেক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত কী হবে এ ব্যাপারে লিখিত কোনো আইন নেই।
ভবিষ্যতেও এ ধরণের বিতর্কের মুখোমুখি যাতে না হতে হয় সেজন্য নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন আইনের পরির্তন চাইছেন। সাবেক অনেক ক্রিকেটারও একই কথা বলছেন। ফাইনালে বাউন্ডারি গণনা করে ইংল্যান্ডকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। বাউন্ডারি গণনার আইনটাও ‘নিরপেক্ষ’ নয় বলে মনে করেন তারা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর