× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার
রিফাত হত্যা

মিন্নি গ্রেপ্তার

প্রথম পাতা

বরগুনা প্রতিনিধি | ১৭ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ১০:০৯

বরগুনার আলোচিত রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাত পৌনে ১০টায় এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন। তিনি বলেন, সকালে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ লাইনে আনা হয়েছিল। তাকে দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার জড়িত থাকার সত্যতা পাওয়ায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর আগে দুপুরে পুলিশ সুপার সংবাদ সম্মেলন করে বলেন, রিফাত শরীফ হত্যা মামলার এক নম্বর সাক্ষী মিন্নি। তাই তাকে আসামিদের শনাক্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ লাইন্সে নিয়ে আসা হয়েছে। এর আগে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার মামলায় অভিযুক্ত আসামিদের আড়াল করতে তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছিলেন আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি।
তাকে গ্রেপ্তারের দাবিতে শ্বশুর দুলাল শরীফের করা সংবাদ সম্মেলনের পর রোববার নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মিন্নি। গত ২৬শে জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা করে নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী, রিশান ফরাজীসহ তার সহযোগীরা। এ ঘটনায় রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যাকাণ্ডের মূল আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা যায়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
saiful islam
১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:৪৬

এই হত্যাকান্ডের মূল অপরাধী হচ্ছে মিন্নি , কারন নয়ন বন্ডের সঙ্গে প্রেম করে পরে বিয়ের পর আবারোও নয়ন বন্ডের সঙ্গে চলে মন দেয়া নেয়া বাধা দেয় স্বামী রিফাত , তাই পথের কাঁটা দুর করতেই হত্যা করা হয় রিফাতকে । তারপর নয়ন বন্ডের ঘটনাতো সবারই জানা ।

Mollah Md. Nurul Isl
১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:২৩

মিন্নি প্রকৃত হত্যাকারী। আমার আন্দাজ তাকে আটকাতে পুলিশ এখানে কৌশলের আশ্রয় নিয়েছে। মিন্নি বিশ্বাস ঘাতক। আমি ধন্যবাদ জানাই বরগুনার জনগণ ও পুলিশ প্রশাসনকে। মনে রাখতে হবে, মিন্নির লোকজন তার পক্ষে বিভিন্ন মাধ্যমে কথা বলবে। তাতে কর্নপাত করা যাবেনা।

Mr.Mosharaf
১৭ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ১১:২১

ভিডিও তে যা দেখলাম, মেয়েটা জড়িত আছে। রিফাতের সাথে কেন গাড়ির কাছে যেয়েও গাড়িতে ওঠলো না, কেন চারপাশে তাকালো, কেন আবার কলেজের ভিতরে ডুকলো, রিকসাওয়ালা কেনও তাদের দিকে অভাক হয়ে তাকিয়ে ছিল, যখন তার স্বামিকে ধরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো তখন মেয়েটা কিভাবে স্বাভাবিক ভাবে হাটছিল, যখন তাকে মারছিল তখন মেয়েটা কিভাবে স্বাভাবিক ভাবে হাটছিল, যখন সে একা তার ক্ষত শরির নিয়ে যাচ্ছি লও, তখনও মেয়েটা কিভাবে স্বাভাবিক ছিল, কেন তাকে নিয়ে উদাসীন ছিল না, কেনও বা তার স্বামি তাকে ছাড়া একা চলে গেলও। সব কিছু বিবেচনা করলে দেখা যায় মেয়াটা আসলে দুষি। ‍ওদের পনিকল্পনা ছিল।

sdd
১৭ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ৯:০২

রাজনৈতিক গডফাদারদের ছত্রছায়ায় থাকা ক্রিমিনালদের গ্রেফতার না করে মিন্নিকে কেন গ্রেফতার করা হয়েছে? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বিষয়টি এই পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে যে আপনার হস্তক্ষেপ না হলে এই মেয়েটিকে আপনারই প্রশাসন অপরাধী বানিয়ে শাস্তি দেবে ও প্রকৃত অপরাধী গায়ে বাতাস লাগিয়ে সমাজকে দূষিত করতেই থাকবে। অবিলম্বে এই পুলিশ সুপারকে সাসপেন্ড করা হোক ও মিন্নিকে ছেড়ে দেয়া হোক।

জাফর আহমেদ
১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ১১:২৪

পুলিশ কেন তাকে এতদিন পর গ্রেপ্তার করেছে সেটা পুলিশ জানে । তবে সে যে খুনের পেছনের মুল কলকাঠি যে তার ইশারায় লড়েছে সে অনেক আগেই পরিস্কার ছিল।

অন্যান্য খবর