× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার

একই উত্তর ৯৫৯ পরীক্ষার্থীর খাতায়

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৭ জুলাই ২০১৯, বুধবার, ১১:১১
প্রতীকী ছবি

পরীক্ষায় নকল করার ক্ষেত্রে নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন হলো ভারতে। প্রায় এক হাজার পরীক্ষার্থীর খাতার উত্তর হুবুহু, একই। এমনকী, সকলের ভুলগুলোতেও অকাট্য মিল। তাও আবার বোর্ড পরীক্ষায়। খাতা দেখতে গিয়ে স্তব্ধ হয়ে গেছেন শিক্ষকরা। তাও আবার একই বিষয়ে নয়, একাধিক বিষয়ে গণহারে নকল করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের গুজরাটে। এ খবর দিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।
খবরে বলা হয়, দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার খাতা দেখা চলছিল।
খাতা দেখা শুরু কিছুক্ষণের মধ্যেই চোখ কপালে ওঠে যায় গুজরাট সেকেন্ডারি অ্যান্ড হায়ার সেকেন্ডারি এডুকেশন বোর্ডের শিক্ষকদের। খাতা দেখতে গিয়ে তারা দেখলেন, ৯৫৯ জন পরীক্ষার্থীর খাতার উত্তর হুবহু এক। শুধু তাই নয়, ওই সব উত্তরপত্রের মধ্যে ভুলগুলোও মিলে যাচ্ছে।

গণহারে নকল করার এই ঘটনা সামনে আসতেই নড়েচড়ে বসেছেন বোর্ড কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন, রাজ্যে দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় এত বড় নকলের ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি। অ্যাকাউন্টিং, অর্থনীতি, ইংরাজি সাহিত্য এবং রাশিবিজ্ঞানে এই নকলের হার সবচেয়ে বেশি বলে জানিয়েছে বোর্ড।

এদিকে, এ ঘটনায় রাজ্যজুড়ে তোলপাড় চলছে। নকল করা ওইসব শিক্ষার্থীদের ফল ২০২০ সাল অবধি আটকে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বোর্ড। যেসব পরীক্ষাকেন্দ্রে এই নকলের ঘটনা ঘটেছে, সেগুলোর ওপর নজর রাখা হচ্ছে। জানা গেছে, জুনাগড় ও গির-সোমনাথ জেলাতে সবচেয়ে বেশি হয়েছে নকল। অনেকে সন্দেহ করছেন এই নকলের সঙ্গে পরীক্ষার্থী ছাড়া কেন্দ্রের দায়িত্বরত কর্মকর্তারাও জড়িত ছিলেন।

পরীক্ষায় নকলের ইতিহাস ভারতের জন্য নতুন নয়। তবে এত বিস্তৃত পরিসরে নকলের ঘটনা আগে কখনো প্রকাশ পায়নি। এ যেন নকলের জগতেও নতুন মাত্রা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর