× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার
পাটুরিয়া-শিমুলিয়ায় ফেরি চলাচল ব্যাহত

আটকা পড়েছে সহস্রাধিক যান, দুর্ভোগ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, মানিকগঞ্জ থেকে | ১৯ জুলাই ২০১৯, শুক্রবার, ৮:১৭

মানিকগঞ্জে ফুঁসে উঠেছে প্রমত্তা পদ্মা নদী। এই নদীতে পানি বৃদ্ধি ও প্রবল স্রোতের কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। স্রোতের বিপরীতে ফেরিগুলো চলতে গিয়ে ঘন ঘন বিকল হয়ে যাওয়ায় দেখা দিচ্ছে ফেরি স্বল্পতা। পাশাপাশি ৩০ মিনিটের নদীপথ পাড়ি দিতে ফেরিগুলোকে সময় দিতে হচ্ছে তিনগুণ বেশি। কিছু কিছু ফেরি স্রোতের সঙ্গে পাল্লা দিতে না পেরে যেখান থেকে ছেড়ে যাচ্ছে আবার সেখানেই ফিরে আসছে। সব মিলিয়ে পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ পড়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের যাত্রীরা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পাটুরিয়া ঘাটে ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় আটকে পড়েছে পণ্যবাহী ট্রাক, যাত্রীবাহী বাস, প্রাইভেটকার ও মাইক্রোবাসসহ কয়েক শতাধিক যানবাহন। ঘাট ছাড়িয়ে যানবাহনের লম্বা লাইন দুই  কিলোমিটার অতিক্রম করে।
শুধু পাটুরিয়া ঘাটেই নয় এমন চিত্র দৌলতদিয়া প্রান্তেও। বিআইডব্লিউটিসি আরিচা ঘাট ব্যবস্থাপক সালাহ উদ্দিন ও মহীউদ্দিন রাসেল জানান, ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে নদীতে প্রবল স্রোত। এ রুটে বর্তমানে ১৫টি ফেরির মধ্যে দুই-চারটি স্রোতের বিপরীতে চলাচল করতে না পারায় ফেরি সংখ্যা কমে গেছে। ইতিমধ্যে ইঞ্জিনে ত্রুটি দেখা দেয়ায় ফেরি খানজাহান আলী, শাপলা ও সন্ধ্যা মালতি বিকল হয়ে পড়েছে। সেগুলোকে পাটুরিয়া ভাসমান কারখানায় মেরামতের জন্য নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া দুপুরের দিকে পাটুরিয়া থেকে লোড নিয়ে আমানত শাহ ও খানজাহান আলী স্রোতের কাছে পরাস্ত হয়ে দৌলতদিয়া প্রান্তে যেতে না পারায় পাটুরিয়া ঘাটে ফিরে এসেছে। কার্যত ১০টি ফেরি দিয়ে কোনো রকমে যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। নৌরুটে স্বাভাবিক সময়ে পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়া পৌঁছাতে একেকটি ফেরি সময় নিতো সর্বোচ্চ ৩০ মিনিট। সেখানে বর্তমানে স্রোতের মাত্রা এতই বেশি যার কারণে একটি ফেরি দৌলতদিয়া পৌঁছাতে সময় লাগছে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা পর্যন্ত। এই কর্মকর্তা আরো জানান, ফেরি সংখ্যা কমে যাওয়ায় বাধ্য হয়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী বাসগুলোকে পারাপার করা হচ্ছে। শুধুমাত্র জরুরি কাজে নিয়োজিত কিছু কিছু ট্রাক পারাপার করা হলে বাকি পণ্যবাহী ট্রাক বুধবার রাত থেকে বন্ধ রাখা হয়েছে। এদিকে ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় পাটুরিয়া ঘাটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে পড়া যাত্রীবাহী বাসের যাত্রীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। পাশাপাশি পাটুরিয়া ঘাটে দু’দিন ধরে ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় আটকে আছে প্রায় ৫ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক। ট্রাকচালকরাও এতে দুর্ভোগের কবলে পড়েছেন। শুধু পাটুরিয়া ঘাটেই নয় দৌলতদিয়া ঘাটেরও একই চিত্র। সেখানেও যানবাহনের চাপ বেশি থাকায় যাত্রীরা ঘণ্টার পর ঘণ্টা পারাপারের অপেক্ষায় থাকছে।
এদিকে শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি জানান, অস্বাভাবিক হারে পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটে তীব্র ঘূর্ণিস্রোতে ১৩টি ফেরি পারাপার বন্ধ হয়ে গেছে। কোনমতে ৩টি ফেরি চলাচল করছে। ফেরি বন্ধ থাকায় উভয় ঘাটে সহস্রাধিক শতাধিক যানবাহন আটকে পড়ে যাত্রীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। পদ্মায় অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধির ফলে গত ৩ দিন নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যহত হচ্ছিল। ফেরি পার না হতে পেরে অনেকেই আবার ফিরে যাচ্ছেন। বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্রে জানা যায়, পদ্মা নদী অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি পেয়ে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটের মঙ্গলবার তীব্র স্রোতের গতিবেগ আরো বেড়েছে। মূল নদী থেকে লৌহজং টার্নিং এর প্রবেশ মুখে সৃষ্টি হয়েছে ভয়াবহ ঘূর্ণিবর্ত। স্রোতের গতিবেগ বৃদ্ধি পেলে স্রোতের সাথে চলতে না পারায় এ রুটের সকল ডাম্ব ফেরিসহ ১৩টি ফেরি বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। বাকি ৩টি ফেরি দিয়ে কোনমতে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। এর মধ্যে বীরশ্রেষ্ট হামিদুর রহমান ও এনাওেয়তপুরী এদুটি রো-রো, এবং  ফরিদপুর ও কাকলি কে-টাইপ ফেরি চলাচল করছে। ফেরিগুলো হলো- চলমান ফেরিগুলোও ঝুঁকি নিয়ে দীর্ঘসময় ব্যয় করে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। এতে কাঠালবাড়ি ঘাটে ৬ শতাধিক যানবাহনসহ উভয় পাড়ে সহস্রাধিক যানবাহন আটকে পড়ে যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

গত ৫ দিনে লৌহজং ফেরিসহ নৌযানগুলোও ঘূর্ণিস্রোতে কোনমতে চরের সাথে ধাক্কা খেয়ে লৌহজং টার্নিং পাড়ি দিচ্ছে। শিমুলিয়া থেকে ছেড়ে আসা  সকল ফেরি, লঞ্চ, স্পিডবোটগুলো উজান বেয়ে অতিরিক্ত সময় নিয়ে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। প্রতিটি ফেরি পারাপারে দীর্ঘ সময় বেশি সময় লাগছে। লঞ্চ পারাপারেও বেশি সময় লাগছে। এতে সময় বেশি ব্যয়ের সাথে সাথে বাড়তি জ্বালানিও খরচ হচ্ছে। কমে গেছে ফেরির ট্রিপ সংখ্যা। বিআইডব্লিউটিসির কাঠালবাড়ি ঘাট ম্যানেজার আঃ সালাম বলেন, পদ্মায় পানি বৃদ্ধির হার অস্বাভাবিক ফলে লৌহজং টার্নিং এ ঘূর্ণিবর্ত আরো বেগবান হয়েছে , নদীতে স্রোতও বেড়েছে। ডাম্ব ফেরিসহ বেশিরভাগ ফেরি সন্ধ্যা থেকেই বন্ধ। ৩টি ফেরি কোনমতে চললেও পারাপারে অনেক বেশি সময় লাগছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর