× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার

মিন্নির পক্ষে লড়বেন শতাধিক আইনজীবী

এক্সক্লুসিভ

মো. মিজানুর রহমান, বরগুনা থেকে | ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার, ৯:০৩

রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির যদি কিছু হয় তাহলে আত্মহত্যার ঘোষণা দিয়েছেন মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হক কিশোর। এ সময় তিনি দাবি করেন, মিন্নিকে রিমান্ডে নিয়ে জোর করে জবানবন্দি আদায় করা হয়েছে। গতকাল সকাল ১১টায় রগুনা কারাগারের মূল গেইটে মিন্নির সঙ্গে দেখা করার পর সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।
মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, বাংলাদেশে যতো আইনজীবী আছেন তাদের কাছে আমার অনুরোধ, আপনারা দেখুন আমার মেয়েকে চাপ দিয়ে জবানবন্দি নেয়া হয়েছে। আমার মেয়ের কিছু হলে আমি আত্মহত্যা করবো।
কারাগারে গিয়েছিলাম। মেয়ের দিকে তাকাতে পারছি না। তাকে অনেক নির্যাতন করা হয়েছে। আমি আমার মেয়ের প্রতি অন্যায়ের সুবিচার চাই।
অন্যদিকে বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন জানান, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। এখানে জোর-জবরদস্তির কিছু নেই।
আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মিন্নি। এছাড়াও মামলায় আরও কয়েকজন সন্দেহভাজন পুলিশের নজরে রয়েছে।
এর আগে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৫টায় রিমান্ড চলাকালীন মিন্নিকে বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মো. সিরাজুল ইসলাম গাজীর আদালতে হাজির করা হয়। মিন্নি আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।
তবে মিন্নির বাবা মোজাম্মেল জানিয়েছেন, ক্ষমতাসীনরা মিন্নির পক্ষে বরগুনার কোনো আইনজীবীকে দাঁড়াতে দেননি। ঢাকা থেকে আইনজীবীরা আসবে শুনে পুলিশ নির্যাতন করে তড়িঘড়ি তার মেয়েকে দিয়ে মিথ্যা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করিয়েছে। হত্যাকাণ্ডের মামলাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে তার মেয়েকে গ্রেপ্তার করে মামলায় জড়ানো হয়েছে। এখন আবার তাকে দিয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও রেকর্ড করানো হলো। এর মাধ্যমে প্রকৃত সত্যকে আড়াল করার চেষ্টা হয়েছে। আমি আইনি লড়াই করে সত্যটা বের করব ইনশাআল্লাহ্‌।
মেয়ে আমার জীবন বাজি রেখে তার স্বামীকে রক্ষা করতে গেছে। এটাই তার অপরাধ? এসব কিছুই শম্ভু বাবুর (স্থানীয় সাংসদ ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু) খেলা। তার ছেলে সুনাম দেবনাথকে রক্ষা করার জন্য আমাদের বলি দেয়া হচ্ছে।
মিন্নিকে যখন আদালত থেকে বের করা হচ্ছিল, তখন তাকে পুলিশের দু’জন নারী সদস্য ধরে ছিলেন। ছোট পিকআপে তোলার সময় মিন্নি কিছু একটা বলার জন্য উদ্যত হয়েছিলেন। কিন্তু পাশে থাকা নারী পুলিশ সদস্য এ সময় মিন্নির মুখ চেপে ধরেন।
গত মঙ্গলবার জিজ্ঞাসাবাদের কথা বলে মিন্নিকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে রাতে রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারের কথা জানান পুলিশ সুপার। পরদিন বুধবার পুলিশ মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতদিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করে। বিচারক শুনানি শেষে পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ডের ২ দিনের মাথায় পুলিশ শুক্রবার বিকালে মিন্নিকে আদালতে হাজির করে। পরে বিচারকের খাসকামরায় ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বরগুনার ওসি (তদন্ত) মো. হুমায়ুন কবির বলেছেন, ৫ দিনের জন্য রিমান্ডে নেয়া হলেও মিন্নির কাছে আমাদের যা জানার ছিল তা জানা হয়ে গেছে। আদালতে তিনি কী বলেছেন সে সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না।
মিন্নিকে জড়িয়ে অশালীন ভিডিও প্রকাশের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি:
রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে জড়িয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অশালীন ভিডিও প্রকাশে জড়িতদের বিরুদ্ধে ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে মামলা করার প্রস্ততি চলছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এই মামলা করা হবে। মানবাধিকার সংগঠন ব্লাস্ট, আইনজীবী ফারুকসহ ঢাকার একদল আইনজীবী এই মামলা করার উদ্যোগ নিয়েছেন। চলতি সপ্তাহে এই মামলা করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন অ্যাডভোকেট মো. ফারুক আহম্মেদ। তিনি বলেন, ‘আমরা সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করব।’
মিন্নির পক্ষে লড়বেন শতাধিক আইনজীবী:
আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে আইনি সহায়তা দেবেন শতাধিক আইনজীবী। বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্টের (ব্লাস্ট), আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক), নিজেরা করি’র আইনজীবীরা এই সহায়তা দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। ব্লাস্টের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জেডআই খান পান্না এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
গতকাল শনিবার সকালে ঢাকা থেকে ১৪ সদস্যর আইনজীবী প্রতিনিধিদল বরগুনার পথে রওনা দিয়েছেন। বিকালে ২০ সদস্যর আরো একটি আইনজীবী প্রতিনিধিদল বরগুনা যাবেন।
এ বিষয়ে জেডআই খান পান্না বলেন, তিন সংগঠনের আইনজীবীদের প্রতিনিধি দল বরগুনা যাচ্ছে। ইতোমধ্যে অভিজ্ঞ ১৪ জন আইনজীবী রওনা দিয়েছেন। বিকালে আরো ২০ জন আইনজীবী ঢাকা থেকে যাবেন। ঢাকা ছাড়াও বিভিন্ন স্থানের আইনজীবীরাও তার পক্ষে লড়তে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর