× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার

সোনাইমুড়ীতে ১২ ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী থেকে | ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার, ৯:৩৪

পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার নাটেশ্বর ইউনিয়নের পূর্ব মির্জানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাওলানা ইউছুফ হোসাইন (৫২) নামের এক প্রধান শিক্ষককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও স্থানীয় লোকজন। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে অভিযুক্তকে আটক করে পুলিশ। ৫ ছাত্রী বাদী হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ করলে তাকে আটক করা হয়। অভিযুক্ত মাওলানা ইউছুফ হোসাইনের বাড়ি সোনাইমুড়ী উপজেলার কাশিপুর এলাকায়। সে নাটেশ্বর ইউনিয়নের পূর্ব মির্জানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব মির্জানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউছুফ গত একমাসের বেশি সময় ধরে বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির একাধিক ছাত্রীকে কৌশলে ডেকে মোবাইলে পর্নো ভিডিও ও ছবি দেখাতো। একইসঙ্গে ক্লাস ও অফিস কক্ষে ছাত্রীদের ডেকে নিয়ে তাদের শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিতো, ছাত্রীদের বাথরুমের সামনে গিয়ে দাঁড়িয়ে থেকে উঁকি মারতো ও কয়েকজন ছাত্রীকে দফায় দফায় ধর্ষণের চেষ্টাও করে। পরে ভুক্তভোগী ছাত্রীরা বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি তাদের পরিবারের লোকজনকে জানায়।
এর ভিত্তিতে শনিবার সকালে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকগণ ও স্থানীয় লোকজন একত্রিত হয়ে বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষক ইউছুফকে আটক করে। সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুস সামাদ মানবজমিনকে জানান, অভিযুক্ত শিক্ষক মাওলানা ইউছুফ হোসাইনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হবে। ওসি জানায়, অভিযুক্ত এই প্রধান শিক্ষক ইতিপূর্বে শান্তির হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে থাকাকালে একই ঘটনার জের ধরে এলাকাবাসী মাথা ন্যাড়া করে আলকাতরা লাগিয়ে শাস্তি দেয়। পরে সে তাদের বিভাগকে ম্যানেজ করে এই স্কুলে বদলি হয়ে এসে ফের এই অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর