× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ আগস্ট ২০১৯, সোমবার

সেনেগালকে হারিয়ে আফ্রিকার সেরা আলজেরিয়া

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২১ জুলাই ২০১৯, রবিবার, ৯:৩৬

একই মাঠে সতীর্থদের সঙ্গে রিয়াদ মাহরেজের উল্লাস, অন্য প্রান্তে হতাশায় ন্যুব্জ সাদিও মানে। শুক্রবার রাতে লিভারপুল তারকা মানের সেনেগালকে ১-০ গোলে হারিয়ে আফ্রিকান নেশন্স কাপে চ্যাম্পিয়ন হয় ম্যানচেস্টার সিটি উইঙ্গার মাহরেজের আলজেরিয়া। মিশরের কায়রো আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালের দ্বিতীয় মিনিটেই বাগদাদ বুনেজাহর গোলে এগিয়ে যায় আলজেরিয়া। দ্বিতীয়ার্ধে পেনাল্টি পেয়েছিল সেনেগাল। কিন্তু ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সাহায্যে সেই পেনাল্টি বাতিল করে দেয়া হয়। শেষতক বাগদাদের গোলটাই ২৯ বছর পর নেশন্স কাপের শিরোপা এনে দেয় আলজেরিয়াকে। আসরে এটি আলজেরিয়ার দ্বিতীয় সাফল্য। প্রথমবার তারা চ্যাম্পিয়ন হয় ১৯৯০ সালে।
সেবার স্বাগতিক ছিল আলজেরিয়া।
আলজেরিয়ার এই সাফল্যের কারিগর কোচ জামিল বেলমাদি। গত বছরের আগস্টে সাবেক এই মিডফিল্ডার দায়িত্ব নেন। তার অধীনে ১৬ ম্যাচে মাত্র একটিতে হেরেছে আলজেরিয়া। তবে নেশন্স কাপ জয়ের কৃতিত্বটা দলের খেলোয়াড়দের দিচ্ছেন জামিল। তিনি বলেন, ‘এটা খেলোয়াড়দের কারণেই সম্ভব হয়েছে। তাদের ছাড়া আমি কিছুই না।’  
নেশন্স কাপে এর আগে কখনো চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি সেনেগাল। ২০০২ সালে ফাইনালে ওঠে রানার্সআপ হয় তারা। এবার আসর শুরুর আগে মানে বলেছিলেন, ‘নেশন্স কাপের জন্য উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ট্রফিটাও দিয়ে দিতে রাজি আমি।’ ফাইনালের আগেও কথাটা আরেকবার বলেন মানে। কিন্তু দলকে স্বপ্ন পূরণের খুব কাজে নিয়ে গিয়েও পারলেন না। লিভারপুলের জার্সি গায়ে সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা জেতেন মানে।  
মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের এই আসরে সর্বাধিক ৭ বারের চ্যাম্পিয়ন মিশর। কিন্তু ঘরের মাঠে এবার মোহাম্মদ সালাহর দল শেষ চারেও যেতে পারেনি। আফ্রিকান নেশন্স কাপের ২০১৯ সংস্করণে সর্বাধিক ২৪ দল অংশ নেয়। ১৯৯৮ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত অংশগ্রহণকারী দল ছিল ১৬টি। ২০২৩ আফ্রিকান নেশন্স কাপের আয়োজক গতবারের চ্যাম্পিয়ন ক্যামেরুন।

এক নজরে ২০১৯ আফ্রিকান নেশন্স কাপ
চ্যাম্পিয়ন: আলজেরিয়া
রানার্সআপ: সেনেগাল
তৃতীয় স্থান: নাইজেরিয়া
চতুর্থ  স্থান: তিউনিসিয়া
সর্বাধিক গোলদাতা: ওডিওন ইগহালো (নাইজেরিয়া)- ৫ গোল।
সেরা খেলোয়াড়: ইসমাইল বিন নাসের (আলজেরিয়া)।
সেরা গোলরক্ষক: রইস মবোলাহি (আলজেরিয়া)।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর