× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার

নবীগঞ্জে দুই বখাটের দণ্ড

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নবীগঞ্জ থেকে | ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:২০

নবীগঞ্জে ইভটিজিংয়ের অভিযোগে দুই বখাটেকে পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১ বছর ও ৬ মাসের দণ্ড দেয়া হয়েছে। দুই সন্তানের জনক রুহেল মিয়াকে (২৮) এক বছর এবং ইজিবাইকচালক মোফাজ্জল হোসেনকে (২৫) ৬ মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়। পুলিশ ও ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে প্রকাশ, উপজেলার কালিয়ার ভাঙ্গা ইউনিয়নের লহরজপুর গ্রামের বাসিন্দা আবদুল কাইয়ুমের পুত্র রুহেল মিয়া প্রায় রাস্তাঘাটে গ্রামের যুবতী ও কিশোরী মেয়েদের উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এনিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠক আহ্বান করা হলেও সে উপস্থিত হয়নি। রোববার বিকালে জনৈক কিশোরীকে উত্ত্যক্ত করার সংবাদে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে তাকে আটক করে পুলিশের নিকট সোপর্দ করে। নবীগঞ্জ থানার পুলিশ সন্ধ্যায় তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদ বিন হাসানের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। এ সময় উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিজ্ঞ বিচারক তাকে এক বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন। ওদিকে, একদিন জনৈক কলেজছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের অভিযোগে পুলিশ মোফাজ্জল হোসেন নামের এক যুবককে আটক করে।
রোববার বিকালে আটক বখাটে ইজিবাইকচালক মোফাজ্জলকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আতাউল গনি ওসমানী ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেন। সে কলেজ এলাকার পার্শ্ববর্তী মিলিক গ্রামের মৃত জহুর আলীর পুত্র। তার বিরুদ্ধে ইভটিজিংয়ের অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার কলেজের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করে। এ সময় শিক্ষার্থীদের তরফ থেকে এক সপ্তাহের আল্টিমেটাম দেয়া হয়। এনিয়ে নবীগঞ্জ সরকারি ডিগ্রি কলেজ কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেয়। এরই ভিত্তিতে ওই আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গতকাল দুপুরে দণ্ডিত দুই আসামিকে হবিগঞ্জ কোর্ট হাজতে প্রেরণ করে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর